| ঢাকা, বুধবার, ১০ আগস্ট ২০২২, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৯

মুস্তাফিজ, স্টার্ক, ট্রেন্ট বোল্ট, বুমরাদের মধ্যে উইকেটের দিক দিয়ে এগিয়ে আছেন যিনি

২০২২ মে ০৮ ২৩:৪০:৪৮
মুস্তাফিজ, স্টার্ক, ট্রেন্ট বোল্ট, বুমরাদের মধ্যে উইকেটের দিক দিয়ে এগিয়ে আছেন যিনি

আলমের খান: মুস্তাফিজুর রহমান বর্তমান বিশ্বের অন্যতম সেরা ফাস্ট বোলার। বাংলাদেশি বলেই হয়তো এতোদিনেও সময়ের সেরা বোলার

দের সাথে তুলনা করা হয় না মুস্তাফিজকে। আইপিএলেও খেলেন তুলনামূলক কম মূল্যে। তবে এবার শুধু কথায় নয় পরিসংখ্যান এর মাধ্যমে দেখানো হয়েছে মুস্তাফিজ কেন বিশ্বসেরাদের কাতারে। বিশ্বের অন্যতম সেরা ৩ বোলার মিচেল স্টার্ক, ট্রেন্ট বোল্ট,জস্পৃত বুমরা এর ওয়ানডে পরিসংখ্যান এর সাথে মুস্তাফিজের ওয়ানডে পরিসংখ্যানের তুলনা করা হোক।

জস্পৃত বুমরা: ভারতের হয়ে ৭০ টি ওয়ানডে খেলা জস্পৃত বুমরা উইকেট শিকার করেছেন ১১৩ টি ইকোনোমি ৪.৬৬ এবং এভারেজ ২৫.৪২। নিজের ক্যারিয়ারে মোট বল করেছেন ৬১৭ ওভারে রান দিয়েছেন ২৮৪২। সব মিলিয়ে সময়ের অন্যতম সেরা বোলার মনে করা হয় বুমরাকে। বর্তমানে ভারতীয় দলের পেস বোলিং ডিপার্টমেন্টের নেতাও এই জসপ্রীত বুমরাহ।

ট্রেন্ট বোল্ট: নিজের খেলা ৯৩ ম্যাচে ৫ ইকোনমিতে এবং ২৫৯৩ এভারেজে ১৬৯ উইকেট শিকার করেছেন নিউজিল্যান্ডের এই গতি তারকা। নিজের ক্যারিয়ারে ৮৫২ ওভার বল করে ৪২৬১ রান খরচ করেছেন বোল্ট। নিউজিল্যান্ডের ওয়ানডে দলের অবিচ্ছেদ্য অংশ ট্রেন্ট বোল্ট। দলের বোলিং এর নেতৃত্বে থাকেন এ ফাস্ট বোলার। ২০১৫ এবং ১৯ বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডের ফাইনালে ওঠার পেছনের বোল্টের অন্যতম অবদান ছিল।

মিচেল স্টার্ক: অস্ট্রেলিয়ার এই গতি তারকাকে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার মতো কিছু নেই। ইন সুইং ইয়র্কারের জন্য সবচেয়ে বেশি পরিচিত স্টার্ক। স্টার্কের ইয়র্কার মানেই যেন স্টাম্প উপরে পড়া। ৯৯ ম্যাচে ৫.১৫ ইকোনমিতে ২২৪৬ গড়ে ১৯৫ উইকেট শিকার করেছেন স্টার্ক। ৮৪৯ ওভার বোলিং করে ৪৩৮০ রান খরচ করেছেন এই গতি তারকা। অস্ট্রেলিয়ার ২০১৫ বিশ্বকাপ জেতার পেছনে অন্যতম কারিগর স্টার্ক। ২০১৯ বিশ্বকাপের ছিলেন শীর্ষ উইকেট শিকারিদের মধ্যে। পরিসংখ্যানের দিক দিয়ে সবচেয়ে বেশি সমৃদ্ধ মিচেল স্টার্ক। নিজের খেলা ৯৯ ম্যাচে ১৯৫ উইকেট শিকার করেছেন। অর্থাৎ ম্যাচ প্রতি প্রায় উইকেট তুলে নিয়েছেন দুটি করে।

মুস্তাফিজুর রহমান: ৭২ ম্যাচে ৫.১৮ ইকোনমিতে ১৩১ উইকেট শিকার করেছেন। ৫৯১ ওভার বোলিং করে ৩০৬২ রান খরচ করেছেন কাটার মাস্টার ফিজ। ২৩.৩১ গড়ে বোলিং করেছেন কাটার মাস্টার। পরিসংখ্যান কিংবা ম্যাচ কন্ডিশন সব হিসেবেই কাতারেই রাখতে হবে ফিশ কে। স্টার্কের চেয়ে পরিসংখ্যানে কিছুটা পিছিয়ে থাকলেও ট্রেন্ট বোল্ট,জস্পৃত বুমরাদের চেয়ে কোন অংশেই পিছিয়ে নেই ফিজ। বরং বুমরার চেয়ে কিছুটা এগিয়ে আছেন মোস্তাফিজুর রহমান। ৭০ ওয়ানডেতে বুমরার স্বীকার করেছেন ১১৩ উইকেট। অপরদিকে ৭২ টি ওয়ানডে খেলা মুস্তাফিজ স্বীকার করেছেন ১৩১ উইকেট। অর্থাৎ স্পষ্টভাবেই মুস্তাফিজ উইকেটের বিচারে ভারতের সেরা বোলারের চেয়ে বেশ এগিয়ে। পরিসংখ্যানের হিসেবে মুস্তাফিজকে সেরাদের কাতারে রাখতেই হবে। কারণ পরিসংখ্যান তো আর মিথ্যা বলেনা।

পাঠকের মতামত:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ক্রিকেট এর সর্বশেষ খবর

ক্রিকেট - এর সব খবর



রে