| ঢাকা, বুধবার, ৬ জুলাই ২০২২, ২১ আষাঢ় ১৪২৯

স্পিনারের ‘ক্রাইসিস’ দূর করতে বাংলাদেশ একাদশে নতুন চমক

২০২২ মে ২১ ১৯:৫৩:৫২
স্পিনারের ‘ক্রাইসিস’ দূর করতে বাংলাদেশ একাদশে নতুন চমক

বাংলাদেশ দল থেকে চোটের কারনে ছিটকে যাওয়া অফ স্পিনার নাঈম হাসানের পরিবর্তে কাউকে যোগ করা হচ্ছে না বাংলাদেশ দলে। বলা ভালো, টেম্ট স্কোয়াডে নেওয়ার মতো উপযুক্ত অফ স্পিনার পাওয়া যাচ্ছে না।

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে মিরপুর টেস্টে তাই ব্যাটিং অলরাউন্ডার মোসাদ্দেক হোসেনকে অনেকটা বিশেষজ্ঞ স্পিনারের ভূমিকায় চাইবে দল। বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান জালাল ইউনুস শনিবার বিসিবিতে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে নিশ্চিত করেন এটি।

“ঢাকা টেস্টে কোনো রিপ্লেসমেন্ট নেই (নাঈমের), মোসাদ্দেক আছে স্কোয়াডে। দল আগেই দেওয়া হয়েছে, আর কোনো নতুন স্পিনার নেওয়া হচ্ছে না।”

“নাঈম নেই, মিরাজ ইনজুরিতে আছে, স্পিনারের ক্রাইসিস আছে। এখন আর কিছু করার নেই। দ্বিতীয় টেস্টের জন্য যে স্কোয়াড আছে, সেখান থেকেই স্পিনারের ঘাটতি পূরণ করতে হবে।”

মানসম্পন্ন স্পিনার যথেষ্ট পরিমাণে না থাকার বাস্ততাই ফুটে উঠল নাঈমের কোনো বদলি না নেওয়া ও জালাল ইউনুসের কথায়। নাঈম নিজেই ছিলেন মেহেদী হাসান মিরাজের বিকল্প। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচে চোট পেয়ে এই শ্রীলঙ্কা সিরিজ থেকে ছিটকে যান মিরাজ। নাঈম ১৫ মাস পর টেস্ট খেলার সুযোগ পেয়ে প্রথম ইনিংসে নেন ৬ উইকেট। কিন্তু তিনিও এই টেস্টে চোট পেয়ে পরের টেস্টের জন্য বিবেচনার বাইরে চলে যান।

সাকিব আল হাসান ও তাইজুল ইসলাম থাকায় আর কোনো বাঁহাতি স্পিনার দলে যোগ করার প্রয়োজন নেই। অফ স্পিনে সম্ভাব্য একজন বিকল্প হতে পারতেন শুভাগত হোম। ঘরোয়া লিগে তিনি বরাবরই ধারাবাহিক পারফরমার। এবার জাতীয় লিগে ৬ ম্যাচে তার শিকার ছিল ২০ উইকেট। লিগের শেষ ম্যাচে ১০ উইকেট নিয়ে ঢাকা বিভাগকে এনে দেন শিরোপা। পরে বিসিএলের ফাইনালে দুই ইনিংসেই সেঞ্চুরির পাশাপাশি ৩ উইকেট নিয়ে চ্যাম্পিয়ন করান দলকে।

সব মিলিয়ে এই মৌসুমে লাল বলের দুই টুর্নামেন্টে শুভাগত রান করেন ৫৯.১৮ গড়ে ৬৫৮, উইকেট নেন ২৬টি। তবে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানালেন, বাইরে থাকার কারণে ততটা বিবেচনায় নেওয়া হয়নি এই অলরাউন্ডারকে।

“শুভাগতকে নিয়ে আমাদের আলোচনা হয়েছিল। তবে ও এখন কলকাতায় আছে, হুট করে ডাকা কঠিন। তাছাড়া, আমাদের সিস্টেমেও নেই অনেক দিন ধরে। তাই খুব খুব বেশি এগোয়নি ওকে নিয়ে আলোচনা।”

“মোসাদ্দেক ভালো করবে আশা করি। সাকিব যখন কোভিডের কারণে ছিটকে গেল, তখন তো মোসাদ্দেকের বোলিংয়েই আমরা ভরসা রেখেছিলাম। অভিজ্ঞতা আছে অনেক। পারবে আশা করি।”

বাংলাদেশের হয়ে তিন টেস্ট খেলে এখনও পর্যন্ত স্রেফ ১৫ ওভার বোলিং করেছেন মোসাদ্দেক, কোনো উইকেট পাননি। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ৪২ ম্যাচ খেলে উইকেট ২৯। এখনও পর্যন্ত ইনিংসে ৫ উইকেটের স্বাদ পাননি।

মিরপুর টেস্ট শুরু সোমবার থেকে। প্রথম টেস্ট চট্টগ্রামে ড্র হয়। বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান জালাল ইউনুস শনিবার বিসিবিতে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে নিশ্চিত করেন এটি।

“ঢাকা টেস্টে কোনো রিপ্লেসমেন্ট নেই (নাঈমের), মোসাদ্দেক আছে স্কোয়াডে। দল আগেই দেওয়া হয়েছে, আর কোনো নতুন স্পিনার নেওয়া হচ্ছে না।”

“নাঈম নেই, মিরাজ ইনজুরিতে আছে, স্পিনারের ক্রাইসিস আছে। এখন আর কিছু করার নেই। দ্বিতীয় টেস্টের জন্য যে স্কোয়াড আছে, সেখান থেকেই স্পিনারের ঘাটতি পূরণ করতে হবে।”

মানসম্পন্ন স্পিনার যথেষ্ট পরিমাণে না থাকার বাস্ততাই ফুটে উঠল নাঈমের কোনো বদলি না নেওয়া ও জালাল ইউনুসের কথায়। নাঈম নিজেই ছিলেন মেহেদী হাসান মিরাজের বিকল্প। ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের ম্যাচে চোট পেয়ে এই শ্রীলঙ্কা সিরিজ থেকে ছিটকে যান মিরাজ। নাঈম ১৫ মাস পর টেস্ট খেলার সুযোগ পেয়ে প্রথম ইনিংসে নেন ৬ উইকেট। কিন্তু তিনিও এই টেস্টে চোট পেয়ে পরের টেস্টের জন্য বিবেচনার বাইরে চলে যান।

সাকিব আল হাসান ও তাইজুল ইসলাম থাকায় আর কোনো বাঁহাতি স্পিনার দলে যোগ করার প্রয়োজন নেই। অফ স্পিনে সম্ভাব্য একজন বিকল্প হতে পারতেন শুভাগত হোম। ঘরোয়া লিগে তিনি বরাবরই ধারাবাহিক পারফরমার। এবার জাতীয় লিগে ৬ ম্যাচে তার শিকার ছিল ২০ উইকেট। লিগের শেষ ম্যাচে ১০ উইকেট নিয়ে ঢাকা বিভাগকে এনে দেন শিরোপা। পরে বিসিএলের ফাইনালে দুই ইনিংসেই সেঞ্চুরির পাশাপাশি ৩ উইকেট নিয়ে চ্যাম্পিয়ন করান দলকে।

সব মিলিয়ে এই মৌসুমে লাল বলের দুই টুর্নামেন্টে শুভাগত রান করেন ৫৯.১৮ গড়ে ৬৫৮, উইকেট নেন ২৬টি। তবে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানালেন, বাইরে থাকার কারণে ততটা বিবেচনায় নেওয়া হয়নি এই অলরাউন্ডারকে।

“শুভাগতকে নিয়ে আমাদের আলোচনা হয়েছিল। তবে ও এখন কলকাতায় আছে, হুট করে ডাকা কঠিন। তাছাড়া, আমাদের সিস্টেমেও নেই অনেক দিন ধরে। তাই খুব খুব বেশি এগোয়নি ওকে নিয়ে আলোচনা।”

“মোসাদ্দেক ভালো করবে আশা করি। সাকিব যখন কোভিডের কারণে ছিটকে গেল, তখন তো মোসাদ্দেকের বোলিংয়েই আমরা ভরসা রেখেছিলাম। অভিজ্ঞতা আছে অনেক। পারবে আশা করি।”

বাংলাদেশের হয়ে তিন টেস্ট খেলে এখনও পর্যন্ত স্রেফ ১৫ ওভার বোলিং করেছেন মোসাদ্দেক, কোনো উইকেট পাননি। প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে ৪২ ম্যাচ খেলে উইকেট ২৯। এখনও পর্যন্ত ইনিংসে ৫ উইকেটের স্বাদ পাননি।

পাঠকের মতামত:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ক্রিকেট এর সর্বশেষ খবর

ক্রিকেট - এর সব খবর



রে