| ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৭ জুলাই ২০২২, ২৩ আষাঢ় ১৪২৯

পিএসএলে আফ্রিদির মতো বাজে রেকর্ড এর আগে আর হয়নি

২০২২ ফেব্রুয়ারি ০৪ ১৪:১২:৪৪
পিএসএলে আফ্রিদির মতো বাজে রেকর্ড এর আগে আর হয়নি

পাকিস্তানের হয়ে একটি টেস্ট ও একটি ওয়ানডে খেলা বাঁহাতি স্পিনার জাফর গোহর সম্ভবত একটু খুশি। এক বছর আগে বিব্রতকর রেকর্ড গড়েছিলেন তিনি। গতকাল সেই বিব্রতকর অবস্থা থেকে মুক্তি দিয়েছেন পাকিস্তানের তারকা অলরাউন্ডার শহীদ আফ্রিদি। কারণ গোহরের সেই লজ্জাজনক রেকর্ড ভেঙে দিয়েছেন তিনি।

অবসরের ঘোষণার আগেও বেশ কয়েকবার ক্রিকেট মাঠে ফিরেছেন আফ্রিদি। তবে চলতি মৌসুমে চলমান পাকিস্তান সুপার লিগে (পিএসএল) খেলে অবসর নেওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি। এদিকে বৃহস্পতিবার শুরুটা খারাপ হয়েছে অভিজ্ঞ অলরাউন্ডারের।

গতকাল ইসলামাবাদ ইউনাইটেডের কাছে ৪৩ রানে হেরেছে আফ্রিদির দল কোয়েটা গ্ল্যাডিয়েটরস। জয়-পরাজয় খেলার অংশ। তাই এই ম্যাচে আফ্রিদির পক্ষে এটা মানতে অসুবিধা হওয়ার কথা নয়। কিন্তু নিজের দুর্বল বোলিং রেকর্ড কি ভুলতে পারবেন?

পিএসএলে কাল প্রথম মাঠে নেমেছিলেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক। ইসলামাবাদ ইউনাইটেড এ ম্যাচে আগে ব্যাট করে ৪ উইকেটে ২২৯ রান সংগ্রহ করে। যেখানে আফ্রিদির একারই ‘অবদান’ ৪ ওভারে ৬৭ রানে ১ উইকেট। এর মাঝে ছক্ষা খেয়েছেন ৮টি!

পিএসএলের ইতিহাসে এক ইনিংসে এটাই সর্বোচ্চ রান দেওয়ার রেকর্ড। এর মধ্য দিয়ে গত বছর পিএসএলে পেশোয়ার জালমির বিপক্ষে জাফর গহরের দেওয়া ৬৫ রানের রেকর্ড ভেঙে দিয়েছেন আফ্রিদি।

পল স্টার্লিং, কলিন মুনরো ও আজম খানদের মারমুখী ব্যাটিংয়ের সামনে তেমন ‘ডট’ বল আদায় করতে পারেননি কোয়েটার বোলাররা। সর্বোচ্চ ১১টি ‘ডট’ আদায় করেন মোহাম্মদ নওয়াজ। আফ্রিদি খেলাতে পেরেছেন ৪ বল ডট। তবে নিজের ৪ ওভারের কোটায় ৮টি ছক্কা মেনে নিতে কষ্ট হবে আফ্রিদির।

পিএসএলের ইতিহাসে প্রথম বোলার হিসেবে ইনিংসে ৮টি ছক্কা হজম করলেন আফ্রিদি। তার প্রথম ওভারে তিন ছক্কা হাঁকান মুনরো। এরপর তৃতীয় ওভারে দুটি এবং চতুর্থ ওভারে আরও তিনটি ছক্কা মারেন পাকিস্তানের সাবেক অধিনায়ক মঈন খানের ছেলে আজম খান।

মারমুখী ব্যাটিংয়ে ক্যারিয়ারজুড়ে খ্যাতি কুড়ানো আফ্রিদি ব্যাটিংয়েও ভালো করতে পারেননি। ৮ বলে ৪ রান করে আউট হন তিনি। বোলারদের পিটিয়ে ছাতু বানাতে সিদ্ধহস্ত এই অলরাউন্ডারকেই কাল প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানদের কাছে ধুন্ধুমার মার হজম করতে হলো।

তবে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পাকিস্তান ক্রিকেটের বেশির ভাগ ভক্ত আফ্রিদির পাশেই দাঁড়াচ্ছেন। ৪১ বছর বয়সী ক্রিকেটারকে নিয়ে এক ভক্তের টুইট, ‘বুম বুম শহীদ আফ্রিদির সেরা সময় যারা দেখেছেন, তাদের কাছে তার এমন বোলিং দেখা সত্যিই কষ্টকর। এক দশক আগেও তিনি যেমন ছিলেন, এখন তার ছায়া হয়েও নেই। টিকে থাকো চ্যাম্পিয়ন!’

পাঠকের মতামত:

ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ এর সর্বশেষ খবর

ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ - এর সব খবর



রে