| ঢাকা, রবিবার, ১৪ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১

ভারতেকে কড়া নির্দেশ দিলেন আইসিসি

খেলাধুলা ডেস্ক . বিনোদন৬৯.কম
২০২৩ জুন ০৮ ১২:৩০:৪৫
ভারতেকে কড়া নির্দেশ দিলেন আইসিসি

সুদীর্ঘ কয়েক বছর আগে অস্ট্রেলিয়াতেও গত বছর যখন ক্রিকেট বিশ্বের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রণ সংস্থা ক্রিকেট বোর্ড আইসিসি আয়োজিত টি-২০ বিশ্বকাপের আসরে মুখোমুখি হয়েছিলো দুই দল, তখন মেলবোর্নের এমসিজি’তে গ্যালারিতে উপস্থিত ছিলেন ৯০ হাজারের বেশী দর্শক।

ভারতের সাবেক অধিনায়ক বিরাট কোহলির মহাকাব্যিক ইনিংসে নীল জার্সিধারী শিবির যখন উৎসবে মেতেছিলো, তখন আঁধার নেমেছিলো সবুজ জার্সি পরা ক্রিকেট অনুরাগীদের মুখে। বিশ্বকাপ ফাইনালে ফের ভারত বনাম পাকিস্তান লড়াই দেখার জন্য মুখিয়ে ছিলেন অনেকে। কিন্তু সেমিফাইনালে ইংল্যান্ডের কাছে ভারত হেরে যাওয়ায় সেই আশা আর পূরণ হয় নি।

ক্রিকেট মাঠে ভারত বনাম পাকিস্তান লড়াই আজকাল আর নিয়মিত দেখা যায় না। শেষবার ভারত পাকিস্তান গিয়েছিলো ২০০৮ সালের এশিয়া কাপ খেলতে। সেই বছর’ই ২৬শে নভেম্বর মুম্বই-এর তাজ হোটেল সহ বেশ কয়েকটি জায়গায় জঙ্গী নাশকতার পর আর পাকিস্তানের মাটিতে ভারত-পাক দ্বৈরথ দেখা যায় নি। ২০০৯ সালে ওয়াঘার অপারে যাওয়ার কথা থাকলেও তা বাতিল করে ‘মেন ইন ব্লু।’

২০১২ সালে পাক দল শেষবার ভারতে এসেছিলো দ্বিপাক্ষিক সিরিজ খেলতে। সেই শেষ। এরপর এশিয়া কাপ,বিশ্বকাপ,চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির মত বহুদলীয় টুর্নামেন্টগুলি ছাড়া খেলার মাঠে দেখা হয় নি দুই দলের। টি-২০ বিশ্বকাপের মত প্রতিযোগিতা খেলতে পাকিস্তান ভারতে এলেও ভারত আর কখনো যায় নি ওয়াঘার পশ্চিম পারে। ২০২৩-সালেও এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিলের ক্যালেন্ডার অনুযায়ী এশিয়া কাপ খেলতে ভারতের পাকিস্তান যাওয়ার কথা থাকলেও বিসিসিআই জানিয়ে দিয়েছে পাক ভূমিতে পা রাখবে না ভারতীয় দল।

ক্রিকেটারদের সুরক্ষার প্রশ্ন তুলে বিসিসিআই পাকিস্তানে এশিয়া কাপ খেলতে যেতে অসম্মত হয়েছে। সচিব হিসেবে দ্বিতীয় টার্মে নির্বাচিত হয়েই জয় শাহ জানিয়ে দিয়েছিলেন সেই কথা। এই নিয়ে চলেছে দীর্ঘ টালবাহানা। আয়োজনের দাবী থেকে পাকিস্তান সরে আসে নি একচুলও। ভারতও জানিয়েছে নিজেদের সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার প্রশ্নই আসে না। জট খুলতে একাধিক বৈঠক হয়েছে। কিন্তু মেলে নি কোনো সমাধানসূত্র।

শেষমেশ তাই এবারের এশিয়া কাপের ভবিষ্যতই বিশ বাঁও জলে। তবে এশিয়া কাপের ক্ষেত্রে ভারতের দাবী রক্ষিত হলেও আগামীতে পাকিস্তান না যাওয়ার ব্যাপারে ভারত কতখানি স্থির অবস্থানে থাকতে পারে তা নিয়ে রয়েছে সন্দেহ। ২০২৫ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি আয়োজনের দায়িত্ব পাকিস্তানকেই দিয়েছে বিশ্ব ক্রিকেট নিয়ামক সংস্থা আইসিসি। ভারতের ওয়াঘা সীমান্তের পশ্চিম পারে যাওয়ার দাবীর জবাবে তারা কি বলে তার দিকেই এখন তাকিয়ে ক্রিকেটদুনিয়া।

আইসিসি’র সিদ্ধান্ত যদি ভারতের বিপক্ষে যায় তাহলে সম্ভবত বাধ্য হয়েই পাকিস্তানের মাটিতে পা রাখবে টিম ইন্ডিয়া। সেক্ষেত্রে নিজেদের সিনিয়র কেরিয়ারে প্রথমবার পাকিস্তানের বিরুদ্ধে পাকিস্তানের মাঠেই খেলতে নামতে পারেন বিরাট-রোহিত’রা। ভারতীয় তারকাদের সামনাসামনি দেখার ইচ্ছা রয়েছে পাকিস্তান জনতার। সেই আশা অবশেষে পূরণ হতে পারে ২০২৫ সালে। এবারের এশিয়া কাপ যদি বাতিল হয় তাহলেও ভারত বনাম পাকিস্তান ম্যাচ দেখতে পেতে চলেছেন দর্শকেরা। আগামী একদিনের বিশ্বকাপে মুখোমুখি হওয়ার কথা রয়েছে দুই দেশের। তবে খেলা হবে ভারতের মাঠে। আহমেদাবাদের নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামকে সম্ভাব্য লড়াইয়ের ময়দান হিসেবে মনে করা হচ্ছে।

ভারত পাকিস্তানে যেতে আপত্তি জানানোয় তাদের তরফ থেকে প্রাথমিক ভাবে এশিয়া কাপ আয়োজনের ব্যাপারে একটি হাইব্রিড মডেলের প্রস্তাব দেওয়া হয়েছিলো। সেই প্রস্তাব অনুযায়ী ছয়দলীয় টুর্নামেন্টের বেশীরভাগ অংশটিই আয়োজিত হওয়ার কথা ছিলো পাকিস্তানে। কেবল ভারতের ম্যাচগুলি কোনো নিরপেক্ষ মাঠে সংঘটিত হওয়ার কথা হয়েছিলো। পাক বোর্ডের তরফে বলা হয়েছিলো প্রথমে পাকিস্তানের মাটিতে বাকি পাঁচ দল সব ম্যাচ খেলবে। তারপর ভারতের বিরুদ্ধে খেলার জন্য পাড়ি দেবে অন্য কোথাও।

এমনকি ফাইনালে ভারত উঠলে তাও নিরপেক্ষা দেশে করা যাবে বলেও জানানো হয়েছিলো পাকিস্তানের তরফে। ‘টিম ইন্ডিয়া’র ম্যাচগুলি আয়োজন করার ক্ষেত্রে আগ্রহ দেখিয়েছিলো কাতার, সংযুক্ত আরব আমিরশাহীর মত দেশ। এমনকি ইংল্যান্ডের নামও শোনা যাচ্ছিলো। কিন্তু শেষমেশ সেই সম্ভাবনা দিনের আলো দেখেনি। পাকিস্তান টুর্নামেন্ট আয়োজন করার দাবী থেকে সরে আসে নি।

পিসিবি চেয়ারম্যান নাজম শেঠির জেদের মাশুল সম্ভবত গুণতে হচ্ছে পাকিস্তানকে। সংবাদসংস্থা PTI-এর খবর অনুযায়ী এসিসি’র বৈঠকে পাকিস্তানে এশিয়া কাপে আয়োজিত হওয়া নিয়ে আপত্তি জানিয়েছে বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা আফগানিস্তানের মত দেশগুলোও। ভারতের দাবীর পাশেই থেকেছে তারা। হাইব্রিড মডেল নিয়েও উঠেছে আপত্তি। কেবলমাত্র ভারতের সাথে ম্যাচ খেলতে বারবার পাকিস্তান থেকে অন্য কোনো দেশে যাতায়াত করতে রাজী নয় অন্যান্য দেশগুলি। ভারত, বাংলাদেশ, আফগানিস্তান, শ্রীলঙ্কার যৌথ দাবীর সামনে সম্ভবত নতিস্বীকার করতে চলেছে এশিয়ান ক্রিকেট কাউন্সিল। পাকিস্তান থেকে সম্ভবত সরেই যাচ্ছে এশিয়া কাপ। তারা নিজেদের জেদে অনড় থাকলে পাকিস্তানকে বাদ দিয়েও এশিয়া কাপ আয়োজনের কথা ভাবতে পারে অন্য দেশগুলি। বিকল্প আয়োজক দেশ হিসেবে উঠে আসছে শ্রীলঙ্কার নাম।

আপনার জন্য নির্বাচিত নিউজ

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ক্রিকেট

কোচ সালাউদ্দিন দায়িত্ব পেয়েই দলে তামিম সাব্বির ইমরুল

কোচ সালাউদ্দিন দায়িত্ব পেয়েই দলে তামিম সাব্বির ইমরুল

বিসিবির এক মিটিংয়ে বদলে গেল সব বাঁধ হল কোচ হাথুরুসিংহে। বাংলাদেশের নতুন কোচ হতে যাচ্ছে ...

কোপা চ্যাম্পিয়ন হলে যত টাকা পাবে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা

কোপা চ্যাম্পিয়ন হলে যত টাকা পাবে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা

মাস খানেকের লড়াই শেষে কোপা আমারিকার এবারের আসরে বাকি এখন শুধুই মেগা ফাইনাল। শিরোপা নির্ধারণী ...

ফুটবল

যে ৫ কারনে ফাইনালে ভাগ্য গড়ে দিতে পারে কলম্বিয়া পক্ষে

যে ৫ কারনে ফাইনালে ভাগ্য গড়ে দিতে পারে কলম্বিয়া পক্ষে

লাতিন আমেরিকার ফুটবলে আধিপত্যের লড়াইয়ে মুখোমুখি আর্জেন্টিনা ও কলম্বিয়া। বর্তমান চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনা প্রথম সেমিফাইনালে কানাডাকে ...

কোপার ফাইনালে মাত্র ৫ মিনিটের জন্য যত নেবেন শাকিরা

কোপার ফাইনালে মাত্র ৫ মিনিটের জন্য যত নেবেন শাকিরা

কোপা আমেরিকার ফাইনালে মুখোমুখি হবে আর্জেন্টিনা ও কলম্বিয়া। আন্তর্জাতিক পপ তারকা শাকিরাও এই মহাদেশীয় টুর্নামেন্টের ...



রে