| ঢাকা, বুধবার, ১০ আগস্ট ২০২২, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৯

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডেতে হারার পর যাদেরকে দায়ী করলেন তামিম

২০২২ আগস্ট ০৬ ০৯:৪৪:৩২
জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডেতে হারার পর যাদেরকে দায়ী করলেন তামিম

দ্রুত প্রশ্নের উত্তর দিতে পছন্দ করেন তামিম ইকবাল। তিনি প্রশ্নের পিছনে পাল্টা প্রশ্ন রাখতে পছন্দ করেন। তবে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডে হেরে খুব হতাশ বোধ করেন তামিম ইকবাল। জবাবে যেন কথার কোনো প্রাণ নেই। শুধু অধিনায়ক বলেই সংবাদ সম্মেলনে এসেছিলেন, না হলে এড়িয়ে যেতেন!

৮ বছর পর ১৯ ম্যাচ ওয়ানডেতে বাংলাদেশের কাছে হেরেছে জিম্বাবুয়ে। এই হারের জন্য বাংলাদেশ কি প্রস্তুত ছিল? উত্তর হল না! না, অধিনায়ক ঠিক তা বলেননি। কিন্তু বুঝিয়ে দিলেন, এমন দিন দেখতে হবে। হারের পেছনে দুটি কারণ জানিয়েছেন তামিম। প্রথমে ব্যাটিংয়ে আরও কয়েক রান। তার জন্য ক্যাচ মিস।

হারারেতে প্রথম ব্যাট করে বাংলাদেশ ৩০৩ রান করে। এমনকি একাদশে ৮ জন ব্যাটসম্যান থাকলেও ম্যাচের পর বোঝা যায় ব্যাটসম্যান বন্ধুত্বপূর্ণ উইকেটে ৩০৩ রান কম। বিবিশেষ করে উইকেটে শুরুর আর্দ্রতা কাটিয়ে উঠার পর ২২ গজ যে রানের ফোয়ারা তা বোঝা গেল দ্বিতীয় ইনিংসে। কিন্তু বাংলাদেশি ব্যাটসম্যানরা আশানুরূপ ঝড় তুলতে পারেননি।

তামিম সেই কথাই বলেছেন,‘আমাদের আরও ১৫-২০ রান বেশি করা উচিত ছিল। আমরা ১ উইকেটে ২৫০ রানের মতো অবস্থায় ছিলাম। এ অবস্থায় থাকলে একটু দ্রুত রান তোলা দরকার ছিল, যেন আমরা ওই অতিরিক্ত ১৫-২০ রান করতে পারি।’

ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ ৩-০ ব্যবধানে জিতলেও দলের গ্রাউন্ড ফিল্ডিং নিয়ে চরম বিরক্ত ছিলেন তামিম। কেউ না কেউ ক্যাচ ছাড়ছেন-ই। মিস ফিল্ডিংয়ে রানও বেড়িয়ে যাচ্ছে। তামিমের ভয় ছিল, ক্যাচ মিস করে যেকোনো দিন বাংলাদেশ ম্যাচ হারবে। শুক্রবার হারারেতে সেরকম কিছু হয়েছে। দুই সেঞ্চুরিয়ান কাইয়া ও রাজা ফিল্ডারদের হাতে জীবন পেয়েছেন। এনামুল মিস করেছেন স্টাম্পিং।

আক্ষেপ করে তামিম বলেছেন,‘প্রতিদিন আমি ক্যাচিংয়ের কথা বলি। কোনো না কোনো দিন তো এটা আমাদের হারের কারণ হতো। এটাই হয়তো সেই দিন ছিল। কারণ, টি-টোয়েন্টিতে আমরা অনেকবার ক্যাচ ফেলেছি। কিন্তু ম্যাচ জিতে গিয়েছি। কিন্তু যখন এমন ভালো উইকেটে আপনি ৪টা ক্যাচ ফেলবেন, তাহলে আপনি বেশি ম্যাচ জিতবেন না। এখন মনে হচ্ছে। এটা নিয়ে আমাদের ভাবতে হবে পরের ম্যাচের আগে।’

ফিল্ডিং নিয়েও তার কণ্ঠে ছিল একই সুর,‘অনেক সহজ রান দিয়েছি। এই মাঠে ২ রান হবে। কারণ, এক পাশটা বিশাল। এটা নিয়ে আমি ভাবছি না। কিন্তু সহজগুলো, যেগুলো সহজেই ডট বল হতে পারত, সেগুলো থামাতে পারলে আমরা আরও চাপ সৃষ্টি করতে পারতাম। এগুলো অবশ্যই কষ্ট দেয়।’

পাঠকের মতামত:

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

ক্রিকেট এর সর্বশেষ খবর

ক্রিকেট - এর সব খবর



রে