ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৬ আগস্ট ২০২০, ২২ শ্রাবণ ১৪২৭

গোলাপি বল টেস্টের বাদশাহ স্মিথ-ওয়ার্নাররা

২০১৯ ডিসেম্বর ১৫ ২২:৩৯:৩৩
গোলাপি বল টেস্টের বাদশাহ স্মিথ-ওয়ার্নাররা

গোলাপি বলের টেস্টে অস্ট্রেলিয়ার জয়রথ ছুটছেই। পার্থে দিবা-রাত্রির টেস্টে স্মিথ-ওয়ার্নারদের কাছে পাত্তাই পায়নি নিউজিল্যান্ড। একদিন হাতে রেখেই অস্ট্রেলিয়া জিতেছে ২৯৬ রানের বিশাল ব্যবধানে। আর তিন টেস্টের সিরিজে স্বাগতিকেরা এগিয়ে গেলো ১-০ ব্যবধানে। এ নিয়ে ৭টি দিবা-রাত্রির টেস্ট খেলে সব ম্যাচেই জয় পেলো অস্ট্রেলিয়া। পার্থ স্টেডিয়ামে ৬ ‍উইকেটে ১৬৭ রান নিয়ে অস্ট্রেলিয়া শুরু করেছিল চতুর্থ দিনের খেলা। আগের দিনশেষে ১ রানে অপরাজিত প্যাট কামিন্স বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি। ১৩ রান করে নিল ওয়াগনারের বলে ক্যাচ দিয়েছেন উইকেটকিপার বিজে ওয়াটলিংকে।

দিনের ষষ্ঠ ওভারে ফিরে এসেছেন কামিন্স। পরের ওভারে আবার কিউইদের আঘাত। এবার কলিন ডি গ্র্যান্ডহোমের বলে ওয়েড আউট। ৮ রান নিয়ে দিন শুরু করা ওয়েড আজ যোগ করতে পেরেছেন মাত্র ৯ রান।

শুরুতে দুই উইকেট হারালেও দমে যাননি মিচেল স্টার্ক, ৯ নম্বরে নেমে খেলেছেন ২১ বলে ২৩ রানের আক্রমণাত্মক ইনিংস। টিম সাউদির বলে স্টার্ক আউট হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ৯ উইকেটে ২১৭ রানে দ্বিতীয় ইনিংস ঘোষণা করেছে অস্ট্রেলিয়া। ৬৯ রানে ৫ ‍উইকেট নিয়ে সাউদিই নিউজিল্যান্ডের সেরা বোলার।

চতুর্থ ইনিংসে সবচেয়ে বেশি রান করে জয়ের রেকর্ড ওয়েস্ট ইন্ডিজের, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষেই ৪১৮। তার চেয়ে ৫০ রান বেশি করার লক্ষ্য নিয়ে নেমে শুরু থেকেই নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়েছে কিউইরা। প্রথম ইনিংসের মতো দ্বিতীয় ইনিংসেও মাত্র ১ রান করে ‍আউট জিত রাভাল। এবার স্টার্কের শিকার কিউই ওপেনার। অতিথিদের আশা-ভরসার প্রতীক কেন উইলিয়ামসনও (১৪) ব্যর্থ। নিজের প্রথম বলেই নিউজিল্যান্ড অধিনায়ককে ফিরিয়ে দিয়েছেন নাথান লায়ন।


২১ রানে ‍দুই উইকেট হারানোর পর টম ল্যাথামকে নিয়ে প্রতিরোধ গড়ার চেষ্টা করেছিলেন রস টেলর, কিন্তু সফল হতে পারেননি। প্রথম ইনিংসে ৮০ রান করা টেলর এবার ২২ রান করে ক্যাচ দিয়েছেন উইকেটকিপারকে। স্টার্ক প্রতিপক্ষের সবচেয়ে অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানকে ফেরানোর পরের ওভারে ল্যাথামও আউট। ১৮ রান করে লায়নের বলে এলবিডাব্লিউর ফাঁদে পড়েছেন কিউইদের অন্য ওপেনার। স্কোর তখন ৪ ‍উইকেটে ৫৭ রান। দলীয় ৯৮ রানে হেনরি নিকোলসও (২১) ফিরে এসেছেন।

এরপর অবশ্য একটা ভালো ‍জুটি গড়েছেন গ্র্যান্ডহোম ও ওয়াটলিং। ষষ্ঠ উইকেট জুটিতে দুজনের অবদান ৫৬ রান। তবে টেলর-ল্যাথামের মতো এ দুজনকেও ফিরতে হয়েছে পরপর দুই ওভারে। ওয়াটলিং করেছেন ৪০ আর গ্র্যান্ডহোমের ব্যাট থেকে এসেছে ৩৩ রান।

১৫৪ রানে সপ্তম উইকেট হারানোর পর বেশিক্ষণ টিকতে পারেনি নিউজিল্যান্ড, অলআউট হয়ে গেছে ১৭১ রানে। চারটি করে উইকেট নিয়েছেন স্টার্ক ও লায়ন। ম্যাচে ৯ উইকেট শিকার করে স্টার্ক ম্যাচের সেরা খেলোয়াড়।

মেলবোর্নে দ্বিতীয় টেস্ট শুরু হবে ২৬ ডিসেম্বর। ৩ জানুয়ারি সিডনিতে শুরু তৃতীয় ও শেষ টেস্ট। টেস্ট সিরিজ শেষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে মুখোমুখি হবে অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড।-


খেলাধুলা এর সর্বশেষ খবর

খেলাধুলা - এর সব খবর