ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ জানুয়ারি ২০২০, ১১ মাঘ ১৪২৬

বিপিএলে প্রতি দলে একজন করে দুর্নীতি দমন কর্মকর্তা

২০১৯ ডিসেম্বর ০৫ ১৯:১৮:১০
বিপিএলে প্রতি দলে একজন করে দুর্নীতি দমন কর্মকর্তা

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট জুয়াড়ির প্রস্তাব গোপন করায় সব ধরনের ক্রিকেট থেকে এক বছর নিষিদ্ধ হয়েছেন বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। এই এক বছরে আবার একই ঘটনা ঘটালে শাস্তির মেয়াদ আরও এক বছর বেড়ে যাবে। সেরা ক্রিকেটারকে হারিয়ে জুয়াড়িদের ব্যাপারে সতর্কবস্থানে বাংলাদেশ ক্রিকেট

বোর্ড-বিসিবি। বঙ্গবন্ধু বিপিএলে তাই প্রতি দলের সঙ্গেই নিয়োগ দেওয়া হচ্ছে একজন করে দুর্নীতি দমন কর্মকর্তা (এসিও)। বিজ্ঞাপন শুধু সাকিব কান্ডই নয়। বিপিএল ষষ্ঠ আসরে চার ক্রিকেটারকে দল পাইয়ে দেওয়ার কথা বলে অনৈতিক প্রস্তাব দিয়েছিলেন চিটাগং ভাইকিংস লজিস্টিক ম্যানেজার শাকিল আবেদীন। যদিও সেটা স্পট ফিক্সিং জাতীয় কিছু নয়। কিন্তু তারপরেও তাকে নিষিদ্ধ করতে যাচ্ছে বিসিবি। উদ্দেশ্য একটিই ফিক্সিংয়ের ছোবল থেকে দেশের ক্রিকেটকে মুক্ত রাখা।

বিপিএলের আগে এমন খবর সংবাদ মাধ্যমে চাউড় হলে বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) বিকেলে বিসিবিতে এসে সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জানালেন, ‘অ্যান্টি করাপশন ইউনিট আছে, তারা দেখবে (কি হচ্ছে না হচ্ছে)। আমরা সব দলের সঙ্গেই একজন করে (কর্মকর্তা) দিয়ে দিচ্ছি। আমরা খুবই সিরিয়াস।‘ প্রতি দলে একজন করে দুর্নীতি দমন কর্মকর্তা নিয়োগ দেওয়ায় বিসিবি’র ব্যয় বাড়বে সেকথাও জানিয়ে রাখলেন বিসিবি বস। ‘আগে থেকেই ছিল (গুরুত্ব)। এখন আরও বাড়ছে।

ওরাই করছে (অ্যান্টি করাপশন ইউনিট)। আমাদের থেকে কিছু খরচ বাড়ছে যেমন প্রতি দলের সঙ্গে দিলে (কর্মকর্তা) তার একটা বেতনের ব্যাপার আছে।‘ বিজ্ঞাপন নিয়োগকৃত দুর্নীতি দমন ইউনিট সম্পুর্ণ স্বাধীনভাবে কাজ সম্পন্ন করবে। বিসিবি কিংবা বিসিবি সংশ্লিষ্ট কেউই তাদের কাজে হস্তক্ষেপ করবে না বলে স্পষ্ট জানিয়ে দেন পাপন।

‘সাধারণত আমাদের এখানটায় এসিইউ (অ্যান্টি করাপশন ইউনিট) আছেন। তারা কথাবার্তা বলে নিয়োগ দিয়ে থাকেন। আমরা জানিও না কে আসবে। এখানে অগ্রাধীকার দেওয়া হয় আগে এরকম অভিজ্ঞতা আছে, বা আর্মিতে আছেন এমন কেউ হতে পারে। এটাতে কে আছেন আমরা জানতেও চাই না। কারণ স্বাধীনভাবে কাজ করতে দেই এই জায়গাটায়।


খেলাধুলা এর সর্বশেষ খবর

খেলাধুলা - এর সব খবর