ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ৭ কার্তিক ১৪২৭

সিনেমার 'মা' রেহানা জলি কেমন আছেন

২০২০ সেপ্টেম্বর ১৯ ১৯:১৬:১৭
সিনেমার 'মা' রেহানা জলি কেমন আছেন

আশির দশকের মাঝামাঝি সময়ে তার চলচ্চিত্রে আসা। কামাল আহমেদ পরিচালিত ‘মা ও ছেলে’ সিনেমায় বুলবুল আহমেদের বিপরীতে অভিনয়ের মাধ্যমে সিনেমায় পথচলা শুরু তার। আর পেছনে তাকাতে হয়নি পেছনে।এরপর ‘গোলমাল’, ‘মহারানী’, ‘চেতনা’, ‘বিরাজ বৌ’, ‘প্রেম প্রতিজ্ঞা’সহ ৪০টি সিনেমায় নায়িকা হয়ে কাজ

করেছেন। তিনি রেহাজান জলি। যাকে এখন ঢাকাই ছবির মা হিসেবেই চেনেন সবাই।

এখন মা হয়ে সিনেমার পর্দায় কত নায়ক-নায়িকা, সন্তানকে রেহানা জলি আগলে রাখতে দেখেন দর্শক বাংলা সিনেমা দেখেছেন এমন কোনো দর্শক খুঁজে পাওয়া দুষ্কর হবে, যারা অভিনয়শিল্পী রেহানা জলিকে চেনেন না। সিনেমায় তার দুঃখ–কষ্টে কাতর হননি এমন মানুষ কমই আছেন।

বছরের শুরুতে ৩৮ বছরের অভিনয়জীবনে এসে রেহানা জলি তার করুণ গল্পের কথা শুনিয়েছিলেন গণমাধ্যমে। জানিয়েছিলেন, ভীষণ কষ্টে আছেন তিনি। অসুস্থতার কারণে অভিনয় করতে পারছেন না। পরে চিকিৎসার প্রধানমন্ত্রী পক্ষ থেকে অনুদান পান এ অভিনেত্রী।

রুপালী পর্দার মা রেহানা জলি এখন কেমন আছেন? সে খোঁজ নিতেই সমকাল প্রতিবেদক যোগাযোগ করেন তার সঙ্গে। রেহানা জলি জানান, খুব বেশি ভালো নেই তিনি। এখন আর খুব ভালো থাকার আশাও করেন না। নিজে আয় রোজগার করে আগে বোনদের সে দেখভাল করেছেন। এখন সেই বোনরাই তাকে দেখভাল করছেন বলে জানালেন।

কয়েক বছর আগে প্রথমে মেরুদণ্ডের হাড়ের সমস্যা ধরা পড়ে তার। এর পরপরই চিকিৎসক রেহানা জলিকে পুরোপুরি বিশ্রামে থাকার পরামর্শ দেন। এরপর তার ফুসফুসে ক্যানসারের জীবাণু পাওয়া যায়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে অনুদান পেয়েছিলেন জলি। তা দিয়ে চিকিৎসা করিয়েছেন।এখন কিছুটা সুস্থ তিনি। তবে মানসিকভাবে স্বস্তি নেই তার। জলি বলেন, কতদিন ধরে ঘরে বসে আছি। কোন কাজ করতে পারছিনা। কাজ না করতে পারায় আরও অসুস্থ হয়ে পড়ছি। আমার সিরিয়াস অবস্থায় প্রধানমন্ত্রী পাশে দাঁড়িয়েছেন। তার দেয়া টাকায় চিকিৎসা চলছে। কিন্তু কাজ করতে না পারার যন্ত্রণা ভেতরে ক্রমেই বাড়ছে।

কাজ নেই বলে কি করোনায় আর্থিক সংকটে পড়তে হচ্ছে? জানতে চাইলে জলি বলেন, ‘করোনায় তো অনেক টাকা ওয়ালারাও আর্থিক সংকটে পড়ছেন। আমি তো আর্থিক সংকটে ছিলোম করোনার আগে থেকেই। এখন কাজ করতে চাই। মানসিক প্রশান্তির জন্য কাজ করা প্রযোজন। কিন্তু এই বয়সে করোনার কারণে কাজ করা নিরাপদ নয়।’

করোনায় শিল্পী সমিতির পক্ষ কোন খোঁজ-খবর বা কোন প্রকার সহায়তা পেয়েছেন কিনা প্রশ্ন করলে রেহানা জলি বলেন, ‘করোনা ভাইরাসের কারণে কাজ বন্ধ রয়েছে। শুটিংও তেমন হচ্ছেনা। এই অবস্থায় শিল্পীদের অনেকে বেকার হয়ে আছেন। আসলে শিল্পীদের মানসিক প্রশান্তি আসে কাজে। তারা ত্রাণ নয়, কাজ চান। এই পরিস্থিতিতে কে কার পাশে দাঁড়াবে সবাই তো কষ্টে আছেন। শিল্পী সমিতি তো শিল্পীদেরই সংগঠন। কাজ না থাকলে শিল্পী সমিতির দায়িত্বশীলরাও কিভাবে সাহায্য করবে। হয়তো প্রথম প্রথম কয়েকবার খোঁজ নেবে, কিছু সাহায্যও করবে। আমার বেলায় এমনটিই হবে।

রেহানা জলি প্রথম সিনেমাতে অভিনয় করেই শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রী ক্যাটাগরিতে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও পেয়েছিলেন। প্রথম মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেন ‘প্রথম প্রেম’ সিনেমায়। ৩৫ বছরের ক্যারিয়ারে চিত্রনায়ক আলমগীর, রাজ্জাক, ইলিয়াস কাঞ্চন, ওমর সানী, মান্না, সালমান শাহ, মৌসুমী, শাবনূর, পপি, শাকিব খান, সাইমন ও বাপ্পীর মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। এদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি শাকিব খানের মা হিসেবে অভিনয় করেছেন।

চলচ্চিত্রের মানুষ নিয়ে বছর খানেক আগেও বেশ আক্ষেপ ছিলো রেহানা জলির। সে সময় বলেছিলেন, কী করলাম জীবনে। চার শ ছবিতে অভিনয় করেছি। সবকিছুই কি তাহলে মিথ্যা। সবই অভিনয়। এই জগতে দেখছি কেউ কারও নয়। এ কেমন জীবন আমাদের। কেউ খোঁজ নেয়না। এমন জীবন তো চাইনি।’

চলচ্চিত্রের মানুষদের প্রতি এবার খোন ক্ষোভ দেখা পাওয়া গেলোনা তার কথায়। পাওয়া গেলো ভালোসার সুর। জানালেন, শিল্পীরা আসলে কাজ পাগল। তারা সবাই কাজ করে খেতে চান। বাসায় থাকলে তারাও অসুস্থ হয়ে পড়েন। শারীরিক এবং মানসিক অসুস্থ। সেই সঙ্গে সবার কাছে ভালো থাকার দোয়াও চাইলেন রঙ্গিন পর্দার এ ‘মা’।


ঢালিউড এর সর্বশেষ খবর

ঢালিউড - এর সব খবর