ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১ অক্টোবর ২০২০, ১৬ আশ্বিন ১৪২৭

ব্যথার ৯টি ওষুধ ফার্মেসিতে নয়, রান্নাঘরেই রয়েছে

২০২০ আগস্ট ২৫ ১৩:৩২:৩৪
ব্যথার ৯টি ওষুধ ফার্মেসিতে নয়, রান্নাঘরেই রয়েছে

সারাদিন খাটাখাটনি করার পর দিন শেষে অনেকেরি শরীরের বিভিন্ন অংশে ব্যথা হয়ে থাকে। আর সেই ব্যথা থেকে দ্রুত পরিত্রাণ পেতে অনেকেই পেইন কিলার বা ব্যথানাশক বড়ি খেয়ে থাকেন। যা আপনার স্বাস্থ্যের পক্ষে দারুণ ক্ষতিকর। তবে ব্যথানাশক বড়ি ছাড়াও ব্যথা নিরাময়ের বেশ কিছু প্রাকৃতিক ওষুধ আছে, যা আপনি আপনার রান্নাঘরেই পেয়ে যাবেন।

বিশেষজ্ঞরা বলেন, প্রাকৃতিক ব্যথানাশক ব্যবহারে কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। এতে একদিকে যেমন ব্যথা সেরে যায়, তেমনি স্বাস্থ্য থাকে ভালো। চলুন জেনে নেয়া যাক হাতের নাগালে থাকা কিছু ঘরোয়া ব্যথানাশক সম্পর্কে:

লবণ শরীরে যদি ধকলজনিত বেশি ব্যথা বোধ হয়, তবে গোসলের পানিতে ১০ থেকে ১৫ টেবিল চামচ (এক কাপ) লবণ মিশাতে পারেন। ওই পানিতে ১৫ মিনিট ভিজুন। ওই স্যালাইন দ্রবণ শরীরের কোষগুলোকে আর্দ্র করে প্রদাহ ঠেকাবে বা ব্যথা সারাবে।

সয়াবিন সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে, সয় প্রোটিন আরথ্রাইটিসের ব্যথা থেকে মুক্তি দিতে পারে। এছাড়া অস্টিওআরথ্রাইটিসের উপসর্গও দূর করতে পারে এই প্রোটিন। এতে ইসোফ্লেভনস নামে প্রদাহনাশক উপাদান আছে।

দই পেটের ব্যথা, প্রদাহ ও পেট ফাঁপার মতো সমস্যা দূর করতে পারে দই। দইয়ে থাকা স্বাস্থ্যকর ব্যাকটেরিয়া হজমশক্তি বাড়ায় এবং পেটের নানা রকম ব্যথা উপশম করে। নিয়মিত দই খাওয়া হলে তা আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াবে। এছাড়া দই দেহের রক্তের শ্বেতকণিকা বাড়িয়ে দেয়, যা জীবাণু সংক্রমণের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে। প্রতিদিন এক বাটি দই খেতে হবে।

লাল মরিচ লাল মরিচে থাকে ক্যাপসিসিন নামের বিশেষ উপাদান। এই উপাদানটি অনেক প্রদাহনাশক ক্রিমেও থাকে। এতে স্নায়ুর প্রান্তগুলো শান্ত থাকে এবং এর রাসায়নিক ব্যথা দূর করে। স্যুপ বা রান্নায় আধা চা চামপ লাল মরিচ নিতে পারেন। কফি কফিতে থাকে ক্যাফেইন। মাথাব্যথা, মাংসপেশীতে খিঁচুনি বা ব্যথার সংবেদনশীলতা কমাতে পারে ক্যাফেইন। কফি শরীরে উদ্যম ও উৎসাহ তৈরি করে।

চেরি প্রাকৃতিক ব্যথানাশক চেরি। এতে যে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে, এটাকে অ্যান্থোসায়ানিন বলে। এই উপাদান প্রদাহবিরোধী হিসেবে কাজ করে এবং ব্যথা উপশম করে। তাই যাদের ব্যথার সমস্যা মনে হয়, কয়েকটি চেরি খেয়ে নিতে পারেন। আকারে ছোট হলেও এই ফলের রয়েছে ওষুধি গুণ।

চেরিতে রয়েছে প্রচুর পুষ্টিগুণ, যা সংক্রামক, এমনকি ক্যান্সার প্রতিরোধেও সহায়তা করে। চেরি টিউমারকে বাড়তে দেয় না এবং শরীরের উপকারী সেলের বৃদ্ধি ত্বরান্বিত করে। চেরি ফলের আছে প্রদাহবিরুদ্ধ গুণাবলি। এর ফলে চেরি খেলে আপনার বাতের ব্যথায়ও উপকার পাবেন।


স্বাস্থ্য এর সর্বশেষ খবর

স্বাস্থ্য - এর সব খবর