ঢাকা, সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১৩ আশ্বিন ১৪২৭

টাইগারদের সর্বনাশ ও ইংল্যান্ডের পৌষমাস

২০২০ আগস্ট ০৪ ১৩:৩৪:২৩
টাইগারদের সর্বনাশ ও ইংল্যান্ডের পৌষমাস

কারো সর্বনাশ আর কারো পৌষমাস। করোনা ভাইরাসের তান্ডব শেষে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার পর একের পর এক সিরিজ খেলে চলেছে ইংল্যান্ড। অন্যদিকে দীর্ঘ বিরতির পরও মাঠে ফেরার বিষয়ে কোনো কূলকিনারা করতে পারছেনা বাংলাদেশ!

প্রায় ৪ মাসের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বিরতির পর সবার আগে মাঠে ক্রিকেট ফেরায় খেলাটির জনক দেশ ইংল্যান্ড। ৮ জুলাই ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্টের মাধ্যমে পুনর্জন্ম ঘটে ক্রিকেটের।

সিরিজে ৩টি টেস্ট ম্যাচ খেলে ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজ। ২৮ জুলাই শেষ হয় তৃতীয় ও শেষ টেস্ট। এর দুইদিন পরই, ৩০ জুলাই আবারো মাঠে নামে ইংলিশরা। এবার ওয়ানডে সিরিজ শুরু হয় তাদের। আইরিশদের বিপক্ষে এরইমধ্যে দু'টি ম্যাচ খেলে ফেলেছে থ্রি লায়নরা। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মুখোমুখি হবে শেষ ওয়ানডেতে।

এদিকে, ওয়ানডে সিরিজ শেষ হতে না হতেই আবারো মাঠে নামছে ইংল্যান্ডের ক্রিকেটাররা। এবার আবারো পাঁচদিনের টেস্ট ম্যাচ। কাল (বুধবার) বিকেলে পাকিস্তানের বিপক্ষে ৩ ম্যাচের টেস্ট সিরিজ শুরু হচ্ছে তাদের। ৫-৯ আগস্ট ম্যানচেস্টারে ১ম টেস্টের পর, ১৩-১৭ তারিখ সাউদাম্পটনে ২য় টেস্ট খেলবে দুই দল। ২১-২৫ আগস্ট একই ভেন্যুতে ৩য় টেস্টে মুখোমুখি হবে ইংল্যান্ড-পাকিস্তান।

কেবল এখানেই শেষ নয়। এরপর আছে ৩ ম্যাচের একটি টি-টোয়েন্টি সিরিজও। সবমিলিয়ে বেশ ব্যস্ত সময়ই কাটাচ্ছেন ইংলিশ ক্রিকেটাররা। টানা কিভাবে এতো ম্যাচ খেলছেন ক্রিকেটাররা, এই প্রশ্ন দেখা দিতে পারে পাঠকদের মনে। উত্তরটা হচ্ছে, সব ফরম্যাটের জন্য আলাদা দল গঠন করেছে ইংলিশ ক্রিকেট বোর্ড। অর্থাৎ যারা টেস্ট খেলেছেন তারা খেলছেন না ওয়ানডে কিংবা টি-টোয়েন্টিতে।

ইংলিশরা যখন এমন ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছে তখন একেবারে অখণ্ড অবসরে বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা। হাতে নেই নতুন কোন অ্যাসাইনমেন্ট। অনিশ্চিত মাঠের লড়াই।

গেল ফেব্রুয়ারিতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সবশেষ টেস্ট ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। একই প্রতিপক্ষের বিপক্ষে মার্চে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি ম্যাচও খেলেছে টাইগাররা। সবশেষ ম্যাচটা ছিল ১১ মার্চ। এরপর থেকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের বাইরে মুশফিক-তামিম-রিয়াদরা।

মাঠে ফিরতে প্রাণপণ চেষ্টা চালাচ্ছে বিসিবি। গতকাল (৩ আগস্ট) বিসিবির ক্রিকেট অপারেশন্স কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান জানিয়েছেন, অক্টোবরে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের সিরিজ খেলা অনেকটাই নিশ্চিত। সিরিজে ২টি টেস্ট ও ৩টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলার কথা রয়েছে টাইগারদের। তবে আনুষ্ঠানিক কোন সিদ্ধান্ত এখনো জানাতে পারেনি বোর্ড।

যদি ওই সময়ে সিরিজটি নিশ্চিত ধরেও নিই, তাহলেও আরো অন্তত ২ মাস অপেক্ষা করতে হবে বাংলাদেশকে। এর মানে সবমিলিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নির্বাসনটা দীর্ঘ হচ্ছে ৭ মাসেরও বেশি!

ততোদিনে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে ক্রিকেট খেলার অভ্যাসটা ভুলে না গেলেই হয়!


খেলাধুলা এর সর্বশেষ খবর

খেলাধুলা - এর সব খবর