ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১ অক্টোবর ২০২০, ১৬ আশ্বিন ১৪২৭

করোনামুক্ত হলেন মল্লিক পরিবারের সবাই

২০২০ আগস্ট ০৪ ০৮:০৫:১৭
করোনামুক্ত হলেন মল্লিক পরিবারের সবাই

‘বাবা, মা, রানে ও আমি কোভিড পজিটিভ। স্বেচ্ছা কোয়ারেন্টিনে।’ ১০ জুলাই টুইটারে এভাবেই নিজের কোভিড-১৯ পজিটিভের খবর জানিয়েছিলেন পশ্চিম বাংলার জনপ্রিয় অভিনেত্রী কোয়েল মল্লিক। জানা গেছে, প্রায় ১৬ দিন আগে থেকেই তাঁদের শরীরে দেখা দিয়েছিল করোনার

উপসর্গ। পরে দেখা যায় শ্বাসকষ্টের মতো উপসর্গও। এবার কোয়েলই জানালেন পরিবারের সবাই সুস্থ, সবাই কোভিড-১৯ নেগেটিভ।

পুরোপুরি সুস্থ হতে বেশ খানিকটা সময় লেগেছে মল্লিক পরিবারের সদস্যদের। মাঝখানে দ্বিতীয় দফায় পরীক্ষা করিয়ে ছিলেন, কিন্তু তখনো করোনা পজিটিভ ছিলেন কোয়েল মল্লিক। অবশেষে ২৪ দিনের বেশি সময় পর ভক্ত-অনুরাগীদের সুসংবাদ দিলেন কোয়েল।

গতকাল রোববার সন্ধ্যায় টুইটে সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান কোয়েল। লিখেছেন, সবার ভালোবাসা, যত্ন এবং প্রার্থনার জন্য কৃতজ্ঞতার শেষ নেই। কারণ সবার ভালোবাসা আর শুভকামনা আমাদের এই সময়ের মধ্যে দিয়ে বেরিয়ে আসতে সাহায্য করেছে। আমরা পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠেছি এবং আমাদের কোভিড-১৯ নেগেটিভ এসেছে।

গেল মে মাসেই মা হয়েছেন কোয়েল মল্লিক। জন্ম দিয়েছেন ফুটফুটে পুত্রসন্তান। তার পর থেকে ঘরেই রয়েছেন তিনি। এ অবস্থায় করোনা সংক্রমণের খবর রীতিমতো ভাবিয়ে তুলেছিল সবাইকে। গতকাল কিছুটা স্বস্তি মিলেছে ভক্তদের।

প্রসঙ্গত, এর আগে কনিকা কাপুরসহ বলিউডের বেশ কয়েকজন তারকার করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর সামনে এলেও মল্লিক পরিবারের সদস্যদের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার মধ্য দিয়ে কলকাতার কোনো তারকার বাড়িতে করোনার হানা দেওয়ার প্রথম খবর পাওয়া গেছে। এরপর সিপিএমের প্রবীণ নেতা শ্যামল চক্রবর্তী করোনায় আক্রান্ত হওয়ায় তাঁর মেয়ে অভিনেত্রী ঊষসী চক্রবর্তীও হোম কোয়ারেন্টিনে চলে যাওয়ার খবর দিয়েছে কলকাতা থেকে প্রকাশিত বিভিন্ন সংবাদপত্রের অনলাইন সংস্করণ। তবে ঊষসী চক্রবর্তী করোনা টেস্ট করালে তাঁর রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। ঊষসীর মন্তব্য ছিল এমন, ‘আমি এমনিতেও বাবা আর আমার ফ্ল্যাট আলাদা, অন্য ফ্লোরে।

তবুও টেস্ট করাই, আমার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। “শ্রীময়ী”র শুটিংয়ে ফিরতে চাই। প্রোডাকশন থেকে অনুমতি পেলেই শুটিং শুরু করব। বাবা আপাতত চিকিৎসাধীন আছেন, তাঁর অবস্থাও স্থিতিশীল।’

ভারতীয় সংবাদপত্রের খবর অনুযায়ী,সংক্রমণের নিরিখে পশ্চিমবঙ্গের মধ্যে সবচেয়ে আশঙ্কাজনক অবস্থা কলকাতা শহরের। সাপ্তাহিক লকডাউনের কড়া বিধিনিষেধ সত্ত্বেও যেন কিছুতেই আয়ত্তে আনা যাচ্ছে না করোনা সংক্রমণের হানা। শুক্রবার রাজ্যে সংক্রমিত মানুষের সংখ্যা আগেকার যাবতীয় রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে। এ দিন রাতে রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের প্রকাশিত বুলেটিনে বলা হয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমিত হয়েছেন ২ হাজার ৪৯৬ জন। ওই সময়ের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৪৫ জনের। সব মিলিয়ে এ রাজ্যে আক্রান্ত মানুষের মোট সংখ্যা পার করে গেল ৭০ হাজারের গণ্ডি।


টালিউড এর সর্বশেষ খবর

টালিউড - এর সব খবর