ঢাকা, মঙ্গলবার, ৪ আগস্ট ২০২০, ২০ শ্রাবণ ১৪২৭

আশরাফুল একমাত্র ক্রিকেটার যার ঝুলিতে রয়েছে এমন রেকর্ড

২০২০ জুলাই ০৩ ১৬:১৯:৫৪
আশরাফুল একমাত্র ক্রিকেটার যার ঝুলিতে রয়েছে এমন রেকর্ড

এক সময়ের দুর্দান্ত ক্রিকেটার ছিলেন মোহাম্মদ আশরাফুল। যার জন্য তাকে বলা হয় বাংলাদেশ ক্রিকেটের প্রথম সুপার স্টার। শুরু থেকেই এমন এমন রেকর্ডের জন্ম দিয়েছেন তিনি যা কখনই ভোলার মত নয়। বিশেস করে অভিষেক টেস্টেই যে রেকর্ডের জন্ম দিয়েছেন

তা আজও সগৌরবে বিদ্যমান আছে। বাংলাদেশের মতো তরুন ও ছোট একটি দলকে যিনি জয়ের স্বপ্ন দেখিয়েছেন, বড় দলগুলোকে কিভাবে হারাতে হয় শিখিয়েছেন। দেশের অগণিত ক্রিকেট সমর্থকদের ক্রিকেটপ্রেমী করেছেন আশরাফুল। বিশেষ করে ২০০৫ সালে অস্ট্রেলিয়া বধ, ২০০৭ সালে আফ্রিকা বধ বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য তখনকার সময়ে বিশ্বজয়ের সমান আনন্দ ও সাফল্য ছিল।

আশরাফুলের হাত ধরে একে একে, জিম্বাবুয়ে, অস্ট্রেলিয়া, আফ্রিকা, শ্রীলংকা, নিউজিল্যান্ড, উইন্ডিজ সহ আরো কিছু দলের সাথে জয় এসেছে, পাশাপাশি টেস্টেও দাপট দেখাতেন নিয়মিত। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আশরাফুলের আছে বেশ কয়েকটি রেকর্ড, অভিষেক টেস্টে সর্বকনিষ্ঠ ক্রিকেটার হিসেবে সেঞ্চুরীর রেকর্ডটি ধরে রেখেছেন একক ভাবে, পাশাপাশি তিন ফরম্যাটে দ্রুততম ফিফটির তালিকায়ও সেরাদের কাতারে আছেন তিনি এবং নিজ দেশের হয়ে একক ভাবে আছেন প্রথম স্থানে।

আশরাফুলের রেকর্ড সমূহঃ- মাত্র ১৭ বৎসর বয়সে ২০০১ সালে শ্রীলংকার সাথে টেস্টের ২য় ইনিংসে সর্বকনিষ্ঠ ক্রিকেটার (১৭ বৎসর ৬১ দিন) হিসেবে শতরান করার পাশাপাশি ২১২ বলে ১১৪ রানের ইনিংস খেলেন। যা এখনো সর্বকনিষ্ঠ টেস্ট সেঞ্চুরী হিসেবে বিদ্যমান আছে। বাংলাদেশের ব্যাটসম্যান হিসেবে টেস্টে নির্দিষ্ট কোন একটি দেশের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ সেঞ্চুরী তথা ৫টি সেঞ্চুরী আশরাফুলের। শ্রীলংকার সাথে টেস্টে ৫টি সেঞ্চুরী করেন তিনি।

২০০৫ সালে অজিদের হারানোর পরের ম্যাচেই ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টর্নেডো চালান মোহাম্মদ আশরাফুল। মাত্র ৫২ বলে খেলেন ৯৪ রানের ইনিংস। সেঞ্চুরী পূর্ণ করতে না পারলেও ওয়ানডেতে দেশের হয়ে কম বলে সবচেয়ে বেশি রানের ইনিংস এটিই, ৫২ বলে ৯৪ রানের ইনিংসের মতো বিস্ফোরক ইনিংস এখনো কোন বাংলাদেশী ব্যাটসম্যান খেলতে পারেনি। ৯৪ রান করার পথেই মাত্র ২১ বলে ফিফটি পূর্ণ করেন আশরাফুল, যা দেশের হয়ে সবচেয়ে কম বলে ওয়ানডে ফিফটির রেকর্ড। আন্তর্জাতিক হিসেবে যৌথ ভাবে ৬ষ্ঠ দ্রুততম ফিফটি।

২০০৭ সালের বিশ্বকাপে বারমুদার ৯৪ রানের জবাবে অপরাজিত মাত্র ২৯ রান করে ম্যাচ সেরা হয়ে চমক সৃষ্টি করেন আশরাফুল। ওয়ানডে ম্যাচে ২৯ রান করেও ওয়ানডেতে ম্যাচ সেরা হওয়ার প্রথম রেকর্ড এটি। যা এখনো বিদ্যমান আছে।২০০৭ সালের টি২০ বিশ্বকাপে ওয়েস্ট ইন্ডিজের ১৬৪ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমে মাত্র ২১ বলে দেশের হয়ে দ্রুততম ফিফটি করেন আশরাফুল। ম্যাচে ২৭ বলে ৬১ রান করেন তিনি। দেশের হয়ে যা দ্রুততম টি২০ ফিফটি। আন্তর্জাতিক ভাবে যা ৬ষ্ঠ দ্রুততম ফিফটির রেকর্ড।

২০০৭ সালের ২৫ মে থেকে ভারতের সাথে শুরু হওয়া দ্বিতীয় টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে মাত্র ২৬ বলে দেশের হয়ে দ্রুততম ফিফটি করেন তিনি। ম্যাচে ৪১ বলে ৬৭ রান করেন তিনি। এ ফিফটিটি টেস্ট ক্রিকেটে সময়ের হিসাবে দ্বিতীয় দ্রুততম ফিফটি। সময়ের হিসেবে মাত্র ২৭ মিনিট। মিসবাহ উল হক ২৪ মিনিটে ফিফটি করে প্রথম স্থানে আছেন। টেস্ট ক্রিকেটে বলের হিসেবে দ্রুততম ফিফটির তালিকায় মোহাম্মদ আশরাফুল আফ্রিদির সাথে যৌথ ভাবে ৪র্থ স্থানে আছেন। প্রথম স্থানে মিসবাহ উল হক ২১ বলে ফিফটি করেন তিনি।


খেলাধুলা এর সর্বশেষ খবর

খেলাধুলা - এর সব খবর