ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৪ জুন ২০২০, ২১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

করোনা থেকে কীভাবে সুস্থ হলেন, প্রধানমন্ত্রীকে জানালেন ফয়সাল

২০২০ মার্চ ৩১ ২০:৩০:৪৫
করোনা থেকে কীভাবে সুস্থ হলেন, প্রধানমন্ত্রীকে জানালেন ফয়সাল

ঢাকায় শনাক্ত হওয়া প্রথম করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী ফয়সাল শেখ। তিনি জার্মানিতে লেখাপড়া করেন। গত ১ মার্চ ঢাকায় আসেন। দেশে ফেরার ১০ দিন পর তার করোনাভাইরাসের লক্ষণ দেখা দেয়।

এরপর নিজ উদ্যোগে সরকারের রোগতত্ত্ব রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটে (আইইডিসিআর) যান ফয়সাল শেখ। সেখানে প্রাথমিক টেস্টে তার শরীরে করোনাভাইরাস পজেটিভ বলে জানানো হয়। তিনি এখন সুস্থ।

করোনাভাইরাস প্রতিরোধের লক্ষ্যে চলমান কার্যক্রম সমন্বয় করতে মঙ্গলবার ৬৪টি জেলার সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রীর সরকা‌রি বাসভবন গণভবন থেকে এই ভিডিও কনফারেন্স হয়। এসময় বিভাগীয় কমিশনারের কার্যালয় ঢাকা থেকে সংযুক্ত হন জার্মান ফেরত ফয়সাল শেখ।

এ সময় প্রধানমন্ত্রীকে জানানো হয়, ফয়সাল শেখ ঢাকার প্রথম ধরা পড়া করোনায় আক্রান্ত রোগী। যিনি সুস্থ হয়ে আমাদের মাঝে ফিরে এসেছেন। তার সঙ্গে আপনি একটু কথা বলবেন।

ফয়সাল বলেন, ‘আমি জার্মানিতে পড়ালেখা করি। গত ১ মার্চ দেশে আসি পরিবারের সাথে সময় কাটানোর জন্য। আসার ১০ দিন পর আমার শরীর খুব খারাপ মনে হয়। করোনার লক্ষণ দেখা দিলে আমি নিজে থেকে আইডিসিআর যাই। সত্যি কথা বলতে আমি প্রথম একটু ভয় পেয়েছিলাম। যে এখানে আমি জার্মানির মতো চিকিৎসা সেবা পাবো কি না? কীভাবে চিকিৎসা হবে’

ফয়সাল বলেন, ‘আইইডিসিআরে টেস্ট করার পর তারা আমাকে সর্বাত্মক সহোযোগিতা করেন। সেখানে টেস্ট করার একদিন পর জানায় এটা পজেটিভ। তারা আমাকে কোরেন্টাইনে রাখতে চায়। আমি তাদের সব কথায় রাজি হই। তারা আমাকে বাসায় এসে নিয়ে যায় কুয়েক মৈত্রী হাসপাতালে। সেখানে আমি ১০ দিন কোরেন্টাইনে থাকি। আমার পরিবার ও বন্ধু-বান্ধব যাদের সঙ্গে আমার দেখা হয়েছিল সবাইকে কোরেন্টাইনে রাখা হয়। কয়েক দফা টেস্ট করার পর যখন করোনাভাইরাস নেগেটিভ আসে, আমি পরিবারের কাছে ফিরে যাই। আমার পরিবারের অন্য কারও কোনো সমস্যা হয়নি।’

আইইডিসিআর প্রসঙ্গে এই তরুণ বলেন, ‘তখন থেকে ডাক্তার ফার্সি আমার সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রেখেছেন। খোঁজ-খবর নিয়েছেন। আমি সত্যি খুশি। যে ধরনের চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে আমি এ জন্য শুকরিয়া আদায় করছি।

করোনা রোগ থেকে ভালো হওয়া ফয়সাল শেখ দেশের সবার কাছে অনুরোধ জানিয়ে বলেন, ‘একটাই অনুরোধ প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা মানুন। সবচেয়ে বড় ব্যপার হচ্ছে বাসায় থাকা, ঘরে থাকা নিজের পরিবারকে ঘরে রাখা। যতদিন ঘরে থাকতে বলা হয়েছে ঘরে থাকুন। আমরা সবাই মিলে বিপদ থেকে উদ্ধার পাব। এমন একটি পরিস্থিতি থেকে উদ্ধার পাবো।

এরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আমরা খুব খুশি, সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরে আসায়। মায়ের সন্তান ময়ের কোলে ফিরে গেছে ‘

প্রধানমন্ত্রী এ সময় ফয়সাল শেখকে জিজ্ঞাসা করেন, পরিবারের আর কারওতো কোনো অসুবিধা হয়েছে কিনা। ফয়সাল শেখ বলেন, ‘আমার পরিবার ও বন্ধুবন্ধব কারও কোনো সমস্যা হয়নি। আইডিসিআর থেকে এ ব্যপারে সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণ করেছে। কোনো সমস্যা হয়নি।‘ এরপর প্রধানমন্ত্রী বলেন, আলহামদুলিল্লাহ খুব ভালো, শুনে খুশি হলাম।


জাতীয় এর সর্বশেষ খবর

জাতীয় - এর সব খবর