ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ এপ্রিল ২০২০, ২৬ চৈত্র ১৪২৬

আইসিসির বিশ্বসেরা ৩ ক্রিকেটার মধ্যে ২য় স্থানে বাংলাদেশী ক্রিকেটার

২০২০ মার্চ ২৫ ১০:০৪:০২
আইসিসির বিশ্বসেরা ৩ ক্রিকেটার মধ্যে ২য় স্থানে বাংলাদেশী ক্রিকেটার

অলরাউন্ডার। মানে যিনি ব্যাটিং এবং বোলিং উভয় বিভাগেই সমান পারদর্শী। আধুনিক ক্রিকেটে অলরাউন্ডাররা প্রতিটি দলেরই একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্র। দলে একজন অলরাউন্ডার থাকা মানে হচ্ছে এগারোজনের দলটি যেন বারোজনের দলে পরিণত হয়ে গেল।

গত শতাব্দী সত্তরের দশক থেকে ধীরে ধীরে অলরাউন্ডিংয়ের ধারণাটা পরিচিতি পেতে থাকে। ১৯৭০-২০২০ এই চল্লিশ বছরে অসংখ্য অলরাউন্ডারকে দেখেছে বিশ্ব।

যাদের কেউ কেউ কর্পূরের মতো হারিয়ে গিয়েছেন। আবার কেউ কেউ ইতিহাসের পাতায় স্বর্ণাক্ষরে নিজেদের নাম লিখিয়ে গিয়েছেন। ইতিহাসে এখন পর্যন্ত মাত্র তিনজন অলরাউন্ডার এসেছেন যাঁরা ১০ হাজারের ওপরে রান এবং ৫’শর ওপরে উইকেট শিকার করতে পেরেছেন। ব্যাট এবং বল হাতে বিপ্লব সৃষ্টিকারী বিশ্বসেরা তিনজন ক্রিকেটারকে নিয়েই রইলো আমাদের আজকের প্রতিবেদন।

১ | জ্যাক ক্যালিস

দক্ষিণ আফ্রিকান এই সাবেক ক্রিকেটার তাঁর খেলোয়াড়ি জীবন শেষে নিজ দেশের প্রধান কোচ হিসেবেও নিয়োগ পেয়েছিলেন। পরিসংখ্যান তাঁকে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ অলরাউন্ডারের মর্যাদা দিয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকান এই কিংবদন্তির টেস্ট, ওয়ানডে ও আন্তর্জাতিক টি-টিয়োন্টির রানসংখ্যা যথাক্রমে ১৩২৮৯, ১১৫৭৯ ও ৬৬৬।

এভাবে ব্যাট হাতে তিন ফর্ম্যাটে ২৫৫৩৪ রান করার পাশাপাশি বল হাতেও তুলে নিয়েছিলেন ৫৭৭টি উইকেট। তাছাড়া টেস্ট ও ওয়ানডে – দুই ফর্ম্যাটেই দশ হাজারের ওপর রান এবং আড়াইশোর ওপরে উইকেট শিকারি একমাত্র ক্রিকেটার তিনি৷ আঠারো বছরের ক্যারিয়ারে তিনি অনেকবার দলকে বড় বিপদের হাত থেকে বাঁচিয়েছিলেন। শুধু তাই নয়, সেসময়কার দক্ষিণ আফ্রিকান মিডল অর্ডারের অন্যতম প্রধান ভরসা ছিলেন জ্যাক ক্যালিস।

২ | সাকিব আল হাসান

বাংলাদেশি এই সুপারস্টার হচ্ছেন ক্রিকেট ইতিহাসের একমাত্র অলরাউন্ডার যিনি কিনা একই সময়ে একাধারে তিনটি ফর্ম্যাটেরই অলরাউন্ডিং র‌্যাংকিংয়ে এক নম্বর অবস্থানে ছিলেন। তিনি হচ্ছেন স্পিন অলরাউন্ডিং নামের ধারণার বিকাশ সাধনকারী । ২০০৬ সালে অভিষেকের পর থেকে তাঁর হাত ধরে অসংখ্য মাইলফলক ছুঁয়েছে বাংলাদেশ।

গত বিশ্বকাপে তাঁর পারফর্ম্যান্সের কথা কি কেউ ভুলতে পেরেছে? পুরো ক্যারিয়ার জুড়েই এভাবে ব্যাট-বল হাতে দুর্দান্ত পারফর্ম্যান্স দেখিয়ে যাচ্ছেন তিনি। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে তিন ফর্ম্যাট মিলিয়ে তাঁর মোট সংগ্রহ ১১৭৫২ রান এবং মোট শিকার ৫৬২টি উইকেট। আমরা আশা করি যে, তিনি দ্রুতই মাঠে ফিরে আসবেন এবং উইকেট শিকারের দিক থেকে তালিকার শীর্ষে থাকা জ্যাক ক্যালিসকেও পিছনে ফেলবেন।

৩ | শহীদ আফ্রিদি

তালিকার তৃতীয় এবং সর্বশেষ ব্যক্তিটি হচ্ছেন পাকিস্তানি তারকা শহীদ আফ্রিদি। পুরো বিশ্বের দর্শকদের জন্য আফ্রিদি ছিলেন এক মজার চরিত্র। মারো নয় মরো – এটা ছিল আফ্রিদির বিখ্যাত নীতি। তিনি ক্রিজে এসে হয় ডাক মারতেন, না হলে বড় ইনিংস খেলতেন। তিন ফর্ম্যাট মিলিয়ে তাঁর মোট সংগ্রহ ছিল ১১১৯৬ রান এবং মোট উইকেট শিকারের সংখ্যা ছিল ৫৪১টি।


খেলাধুলা এর সর্বশেষ খবর

খেলাধুলা - এর সব খবর