ঢাকা, রবিবার, ৫ এপ্রিল ২০২০, ২১ চৈত্র ১৪২৬

করোনায় যা করছেন এই নির্মাতারা

২০২০ মার্চ ২০ ১৬:৫৫:০৭
করোনায় যা করছেন এই নির্মাতারা

বিশ্ব তোলপাড় কোভিড–১৯ নামের এক ভাইরাসে। চায়ের কাপে ঝড় তুলছে যে নাম, সেটি আর কিছু নয়, করোনা। বিশ্ববিনোদনেও পড়েছে করোনার কালো ছায়া। চলচ্চিত্র, সংগীত ও নাটকসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা তাই করোনাকে বলছেন বিনোদন দুনিয়ার নতুন খলনায়ক। দেশে দেশে

উৎসব বাতিল হচ্ছে, শুটিং বন্ধ হচ্ছে, পিছিয়ে যাচ্ছে ছবির মুক্তি। যে ছবিগুলো মুক্তি পেয়েছে, মুখ থুবড়ে পড়ছে বক্স অফিসে। বাংলাদেশের স্বাধীন ধারার নির্মাতাদের কাছ থেকে জেনে নেওয়া যাক, করোনার কারণে তাঁদের ভ্রু কতটা কুঞ্চিত হলো। ৭৪ বছরের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো স্থগিত হয়েছে কান চলচ্চিত্র উৎসবের এবারের আসর। বিশ্ব চলচ্চিত্রে ঢুঁ দেওয়া যাঁরা নিয়মিত অভ্যাস বানিয়ে ফেলেছন, দেখা যাক, করোনার দিনগুলোতে কী ভাবছেন, কী করছেন সেই নির্মাতারা। ফারুকীর জীবনই আটকে গেছে! করোনার প্রভাবে আপনার কোন কাজটি আটকে গেল? মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর কাছ থেকে সরস উত্তর এল, ‘জীবনই আটকে গেছে। আর কাজ তো আটকে গেছেই।’ ফারুকী জানালেন, মার্চ মাসের শেষে ‘নো ল্যান্ডস ম্যান’–এর পোস্ট প্রোডাকশনের কাজে যাওয়ার কথা ছিল দুটি দেশে। আপাতত সেসব ভুলে থাকতে হচ্ছে। ফারুকী জানালেন, যথেষ্ট আতঙ্কিত।

২০ মিনিট পরপর হাত ধুচ্ছেন। অবশ্য শুধরে নিয়ে বললেন, ২০ মিনিট না হলেও ঘণ্টা পার হতে দেন না। সব মিলিয়ে খুব সতর্ক তিনি। নতুন কাজের আভাস দিলেও সে বিষয়ে কিছুই বললেন না সতর্ক এই নির্মাতা। ফেসবুকে লিখেছেন, ‘বিশ্বের বড় বড় দেশের কর্তাব্যক্তিরা এটাকে তুলনা করছে যুদ্ধকালীন পরিস্থিতি হিসেবে। এটা তো এক অবিশ্বাস্য এবং অবিস্মরণীয় মহাযুদ্ধই। আমরাও আসেন এটাকে যুদ্ধকালীন পরিস্থিতি হিসেবেই নিই। নিজের হাতের সঙ্গে যুদ্ধ করি, হাত পরিষ্কার রাখার যুদ্ধ।

নিজের মনের সঙ্গে যুদ্ধ করি, ঘুরতে না যাওয়ার, বেশি মানুষ এক জায়গায় না হওয়ার, আড্ডাবাজি না করার যুদ্ধ। বেঁচে থাকলে এই সবই করতে পারব।' করোনা ব্যক্তিগত নয়, পারিবারিক, সামাজিক ও আন্তর্জাতিক নির্মাতা কামার আহমাদ সাইমনের ‘নীল মুকুট’ ছবির মুক্তি পিছিয়ে গেছে। পিছিয়ে কোথায় গেছে, তা অবশ্য জানা যায়নি। কামারের সঙ্গে আলাপ করে জানা গেল, ১৩ মার্চ থেকে ২০ মার্চ পর্যন্ত তাঁর দুটি ছবির কাজ নিয়ে যাওয়ার কথা ছিল ভারতে। এরপর যাওয়ার কথা ফ্রান্স আর জার্মানিতে। কিন্তু এখন অনাঙ্ক্ষিত ছুটি উপভোগ করার চেষ্টা করছেন এই নির্মাতা।

জানালেন, করোনা নিয়ে তিনি ব্যক্তিগতভাবে যতটা না আতঙ্কিত, তার চেয়ে বেশি সামাজিকভাবে। ফেসবুকে সবার ভাবনা পড়ছেন। তবে কেউ ওই জায়গাটাতেই নেই যে তাঁর করোনা হলে তিনি নিজেকে কীভাবে কোয়ারেন্টিনে রাখবেন বা পাশের বাসার পিচ্চি ছেলেটার করোনা হলে তিনি কীভাবে প্রতিক্রিয়া দেখাবেন। কামার বলেন, ‘করোনা নিয়ে আমাদের কোনো জাতীয় দিকনির্দেশনা বা ডিসকোর্স নেই। রমজান মাসে যদি কোনো একটা প্রয়োজনীয় খাবারের সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়, আপনাদের প্রস্তুতি কী? করোনা কোনো ব্যক্তিগত বিষয় নয়, পারিবারিক, সামাজিক ও আন্তর্জাতিক।

’ কচ্ছপের মতো চলছে সিনেমার প্রস্তুতি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘ইকো’র সম্পাদনা চলছে ফ্রান্সে, ফিচার ফিল্ম ‘আমার কলোনি’র পোস্টপ্রোডাকশনের কাজ চলছে ভারতে। ‘ট্রি অব নলেজ’–এর শব্দ সম্পাদনার কাজে এই মার্চে যাওয়ার কথা ছিল ভারতে। এই তিনটি ছবিরই অন্যতম প্রযোজক আরিফুর রহমান জানালেন, তাঁদের সব কাজের গতি কমে গেছে। প্রামাণ্যচিত্র ‘প্যারাডাইস’–এর শেষ অংশের শুটিং হওয়ার কথা ছিল মার্চ ও এপ্রিলে। সেসবের কী হবে জানেন না এই প্রযোজক। কারণ, পরিচালক বিজন ইমতিয়াজ যুক্তরাষ্ট্রে জরুরি অবস্থায় দিন কাটাচ্ছেন।

আরিফ-বিজন প্রযোজিত আফগানিস্তানের স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘রোকাইয়া’ নির্বাচিত হয়েছিল ফ্রিবার্গ ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে। সেটিও ইতিমধ্যে বাতিল হয়েছে। সামনে আরও কিছু ফেস্টিভ্যালে ‘রোকাইয়া’র যাওয়ার কথা ছিল, যেগুলো একে একে বন্ধের ঘোষণা আসছে। অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্র থেকে গ্লোবাল মিডিয়া মেকারসের (জিএমএম) বাংলাদেশে ১২ জনকে নিয়ে একটি কর্মশালা করার কথা ছিল। এই প্রোগ্রামের ফেলো (সাবেক অংশগ্রহণকারী) হিসেবে সেই দায়িত্ব পেয়েছিলেন আরিফুর রহমান ও বিজন ইমতিয়াজ। সব ঠিকঠাক। এমন সময় মার্কিন মুলুক থেকে জানানো হলো, করোনার কারণে আসবেন না পরিচালক–প্রযোজকেরা। বার্লিনে ছিল না কোনো চীনা চলচ্চিত্র–সমালোচক সাদিয়া খালিদ রীতি বার্লিন ফিল্ম ফেস্টিভ্যালের ট্যালেন্ট হান্ট ক্যাম্পাস থেকে দেশে ফিরেছেন ২ মার্চ। জানালেন, সেখানে গত ২০ ফেব্রুয়ারি থেকে ১ মার্চ পর্যন্ত চলা উৎসবে অংশ নেননি কোনো চীনা নাগরিক। ইতালি থেকে আসা ব্যক্তিরা করমর্দন করেননি, নিরুৎসাহিত করেছেন অন্যদেরও। বাকিরা মোটামুটি উৎসবমুখর পরিবেশেই সময় কাটিয়েছেন। কানসহ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে বিচারকের দায়িত্ব পালন করা রীতি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ও ইউল্যাবে শিক্ষকতাও করেন।

জানালেন, এখন থেকে অনলাইনেই ক্লাস নেবেন। সিনেমা দেখুন, লিখুন আর ভিটামিন সি খান নির্মাতা অমিতাভ রেজা চৌধুরী অবশ্য জানিয়েছিলেন, এমন কোনো কাজ করছিলেন না, যেটা করোনার কারণে স্থগিত বা বাতিল হয়ে গেছে। তবে আপাতত ঘরে বসে বই পড়ায় মন দিয়েছেন তিনি। ফেসবুকে ছবি পোস্ট করে জানিয়েছেন, এই সপ্তাহে কী কী বই পড়বেন তিনি। অন্যদেরকেও আমন্ত্রণ জানিয়েছেন, বই পড়ার আর ফেসবুকে তা নিয়ে আলাপ জারি রাখার জন্য। আর বলেছেন, ‘ঘরবন্দী নয়, চলেন, ঘরে থেকে একটু নিজের জন্য সময় কাটাই। গণসংযোগ কমিয়ে আমরা যদি কিছুদিন সংযত থাকতে পারি, তাহলেই কিছুটা হলেও সংক্রামক চেইনটা ভাঙতে পারব।

আমরা আর বোকামি না করি। এই সপ্তাহে এই বইগুলো পড়ব। আপনি কী পড়ছেন, জানান। আসেন, আড্ডা দিই ফেসবুকে। লড়াই করি সময়ের সঙ্গে।’ ‘জালালের গল্প’–এর নির্মাতা ও ‘ইতি তোমারই ঢাকা’র ক্রিয়েটিভ প্রযোজক আবু শাহেদ ইমন জানালেন, আপাতত তিনি বাইরের সব কাজ বন্ধ করে ঘরে বসে চিত্রনাট্যের কাজ আগাচ্ছেন। মন দিয়ে লিখতে পারছেন বলে ভালোই লাগছে তাঁর। নির্মাতা তাসমিয়াহ আফরিন মৌ ঘরে বসে একটা স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ও একটা ফিচার ফিল্মের চিত্রনাট্যের কাজ করছেন। সিনেমা দেখছেন। সেই সঙ্গে ফেসবুকে মানুষকে করোনা নিয়ে সতর্কতামূলক পোস্ট দিচ্ছেন। সবাইকে বেশি বেশি ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার খেতে বলেছেন তিনি।

অন্যদিকে রেজওয়ান শাহরিয়ার সুমিতের ‘নোনাজলের কাব্য’র শেষ অংশের সম্পাদনা আটকে আছে ফ্রান্সের পায়রিসের একটি স্টুডিওতে। প্যারিস তিন দিন ধরে লকডাউন। কবে আবার সব স্বাভাবিক হবে, কে জানে! এ বছরের মাঝামাঝিতেই বেশ কয়েকটি উৎসবে পাঠানোর কথা ছিল নোনাজলের কাব্য। সেসব আপাতত জলে। তবে হতাশ না হয়ে রেজওয়ান বললেন, ‘আমদের কেবলই সময় নেই, সময় নেই। এই যে সময়টা পেলাম, এটা যেকোনো চিত্রনাট্যকারের জন্য সবচেয়ে ভালো সময়। ঘরে বসে “প্রফেট”–এর (সুমিতের পরের ছবি) নতুন ড্রাফট লিখছি।’


ঢালিউড এর সর্বশেষ খবর

ঢালিউড - এর সব খবর