ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ জুলাই ২০২০, ২৫ আষাঢ় ১৪২৭

‘থর’-এর দুনিয়ায় ক্রিশ্চিয়ান বেল

২০২০ মার্চ ১১ ১৮:০৫:০৮
‘থর’-এর দুনিয়ায় ক্রিশ্চিয়ান বেল

তাইকা ওয়াতিতি, ক্রিস হেমসওর্থ, টেসা থম্পসন, নাটালি পোর্টম্যান এক সিনেমায়। বোঝা যায়, কী ঘটতে যাচ্ছে থর সিরিজের পরবর্তী সিনেমায়? বোমা ফাটানো নতুন খবর হলো এই সারিতে আবার যুক্ত হচ্ছেন মারকুটে অভিনেতা ক্রিশ্চিয়ান বেল। টেসা থম্পসনের মুখ

ফসকে বেরিয়ে গেছে এ খবর। আর যায় কোথা! মার্ভেল ভক্তরা একেবারে রইরই করে উঠলেন। বেলের অবশ্য মুখে কুলুপ। কোনো কথা হবে না এ নিয়ে, মার্ভেল আনুষ্ঠানিক ঘোষণা না করা পর্যন্ত অপেক্ষা। তাতে কী? অপেক্ষা কি আর বাধ মানে ভক্তদের আবেগ। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম থরকে কেন্দ্র করে ক্রিশ্চিয়ান বেলের ছবি দিয়ে সয়লাব। পশ্চিমা গণমাধ্যমও এ নিয়ে করেছে প্রতিবেদন। মার্ভেলের ছবিতে প্রথমবার ঢুকে পড়লেন ক্রিশ্চিয়ান বেল। তবে চরিত্রটা হিরোর নয়। ক্রিস হেমসওর্থের বিপরীতে দেখা যাবে বেলকে, খলনায়কের চরিত্রে।

পশ্চিমা গণমাধ্যম এন্টারটেইনমেন্ট টুনাইটকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে টেসা বলেন, ‘ক্রিশ্চিয়ান বেল আমাদের ভিলেন চরিত্রটি করতে যাচ্ছে। অসাধারণ ব্যাপার এটি। আমি পাণ্ডুলিপি পড়েছি। এর বেশি কিছু বলতে পারব না। আমার আর নাটালির মধ্যে তো মেসেজ চালাচালি হয়েই যাচ্ছে।’ বোঝা যাচ্ছে, তর সইছে না টেসার। মুখ ফসকে তাই বলে ফেলেছেন। ছবি নিয়ে উচ্ছ্বাস যেন ফুরায় না তাঁর, বললেন, ‘বেশ মজা হচ্ছে। ছবির গল্প তাইকার লেখা, পরিচালনাও করবে সে। প্রায় সবাই চেনা আর কিছু নতুন মুখ আসছে।’ ক্রিস হেমসওর্থ ঠিকই থাকছেন ‘থর’ হিসেবে।

এটি হতে যাচ্ছে চতুর্থ ছবি। টেসাকে দেখা যাবে ভালকাইরির চরিত্রে আর নাটালি আছেন জেন ফস্টারের চরিত্রে। এবারও ছবিটির পেছনে থাকছেন কেভিন ফেইগ, প্রযোজক হিসেবে। এটি যে বড় ক্যানভাসের ছবি হতে যাচ্ছে, তার প্রমাণ পাওয়া গিয়েছিল পরিচালকের মুখেও। তাইকা একবার বলেছিলেন, এটা সেরা থর সিনেমা হতে যাচ্ছে। মার্ভেলের অতিমানব পৃথিবীতে থর আসে ২০১১ সালে, দুই বছর পর ২০১৩ সালে আসে থর: দ্য ডার্ক ওয়ার্ল্ড, এরপর ২০১৭ সালে আসে থর: র‌্যাগনারক। নতুন ছবিটির নাম থর: লাভ অ্যান্ড থান্ডার। সূত্র: মেট্রো


হলিউড এর সর্বশেষ খবর

হলিউড - এর সব খবর