ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ এপ্রিল ২০২০, ২৬ চৈত্র ১৪২৬

গুজব হলো সত্যি…

২০২০ ফেব্রুয়ারি ২৭ ১৪:৩৬:৪৮
গুজব হলো সত্যি…

চিত্রনায়িকা বুবলীকে জনসমক্ষে পাওয়া যাচ্ছে না। গুজব রটেছে এই অভিনেত্রী নাকি অন্তঃসত্ত্বা। গুজবে এ–ও শোনা যায়, শাকিব খানের সন্তানের মা হতে যাচ্ছেন বুবলী। কিন্তু শাকিব–বুবলী দুজনই বলেছেন, এই সবই গুজব। এ ঘটনার সত্যতা কতটা, আর কতটা

গুজব, সেই হিসাব–নিকাশে আজ যাচ্ছি না। আমরা বরং বাংলাদেশি তারকাদের ঘিরে থাকা কিছু পুরোনো গুজবের কথা মনে করি, যা আদতে একটা সময় গিয়ে সত্য প্রমাণিত হয়েছিল। শাকিব-অপুর প্রেম, বিয়ে ও সন্তান দেশের বিনোদনজগতের সবচেয়ে আলোচিত গুজব ছিল চিত্রনায়ক শাকিব খান ও নায়িকা অপু বিশ্বাসের প্রেম, বিয়ে ও সন্তান ঘিরে। লম্বা সময় ধরে চলে আসা গুজবের সবটাই যে সত্যি ছিল, তা ফাঁস হয়ে যায় ২০১৭ সালে ১০ এপ্রিল।

সেদিন হঠাৎ করেই এক বছরের ছেলেকে নিয়ে জনসমক্ষে চলে আসেন অপু—সবাইকে জানান, সন্তানের বাবা শাকিব। শাকিব–অপু অভিনীত কোটি টাকার কাবিন ছবিটি জনপ্রিয়তা পাওয়ার পর থেকেই এই জুটিকে ঘিরে শুরু হয় প্রেমের গুজব। তাঁরা জুটি বেঁধে একের এক সিনেমা করতে থাকেন, সেই সঙ্গে ছড়াতে থাকে গুজবের ডালপালা। ২০০৮ সালের পর থেকে শোনা যায় শাকিব–অপুর বিয়ের গুঞ্জন। কিন্তু প্রেম কিংবা বিয়ে—কোনোটাই স্বীকার করেন না শাকিব–অপুর কেউই। তাঁরা তাঁদের প্রেম–বিয়ের খবরকে গুজব বলে উড়িয়ে দিতে থাকেন।

২০১৫ সালে হঠাৎ চলচ্চিত্র অঙ্গন থেকে সরে যান অপু। চলচ্চিত্রপাড়ায় ছড়িয়ে পড়ে, সন্তানসম্ভবা হওয়ায় পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে চলে গেছেন তিনি। সে সময়ও অপুর ব্যাপারে জানতে চাইলে এবং তিনি সন্তানসম্ভবা কি না, জানতে চাইলে শাকিব খান পুরো বিষয়টিকে গুজব বলে উড়িয়ে দেন। এমনকি মুঠোফোনে অপুকে পাওয়া গেলে তিনিও বলেন, প্রেম–বিয়ে–সন্তান—কোনো তথ্যেরই কোনো ভিত্তি নেই। অপু জানান, কাজ থেকে বিরতি নিয়ে ভারতে তাঁর বোনের বাসায় বেড়াতে গেছেন।

কিন্তু ২০১৭ সালের ১০ এপ্রিল এক বছরের ছেলেকে নিয়ে একটি টেলিভিশন চ্যানেলের স্টুডিওতে সরাসরি হাজির হন অপু। নিজ মুখে জানান, শাকিবের সঙ্গে ২০০৮ সালে বিয়ে হয়েছিল তাঁর। আর তাঁদের সন্তান আবরাম খান জয় জন্ম নেয় ২০১৬ সালে। দীর্ঘদিন ধরে চলে আসা গুজব, এভাবেই সত্যি হয়ে যায়। শাকিব–বুবলীর প্রেম—কতটা গুজব, কতটা সত্য, তা সময়ই বলে দেবে। হাবিব-তিশার প্রেম ও ভাঙন বিনোদনজগতে আরেক আলোচিত ঘটনা ঘটেছিল সংগীতশিল্পী হাবিব ওয়াহিদ ও মডেল–অভিনেত্রী তানজিন তিশাকে ঘিরে।

প্রায় দুই বছর ধরে এই জুটির প্রেমের গুঞ্জনে সরব ছিল সংগীত ও নাটকপাড়া। কিন্তু হাবিব–তিশা দুজনই তাঁদের সম্পর্ককে সে সময় গুজব ছাড়া আর কিছুই বলেননি। অবশেষে ২০১৮ সালের ১৮ ডিসেম্বর গণমাধ্যমে দেওয়া তিশার এক সাক্ষাত্কারে বেরিয়ে আসে পুরো ঘটনা। তিশা জানান, তাঁর ও হাবিবের প্রেমের গুজব আসলে সত্যি ছিল। ২০১৬ সালে হাবিবের গাওয়া ‘বেপরোয়া’ গানে মডেল হয়েছিলেন তানজিন তিশা। সেই থেকেই প্রেমের তাঁদের শুরু। কিন্তু প্রেমের গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে তার প্রায় ছয় মাস পর। এর মধ্যে স্ত্রী রেহানের সঙ্গে বিচ্ছেদ হয় হাবিব ওয়াহিদের। সে সময় এই বিচ্ছেদের পেছনে কারণ হিসেবে উঠে এসেছিল তিশার নাম।

কিন্তু হাবিব–তিশা দুজনই তাঁদের সম্পর্ককে সব সময় ‘ব্যক্তিগত’ বলে দাবি করে এসেছিলেন। বলেছিলেন, তাঁরা শুধুই ‘ভালো বন্ধু’। কিন্তু তাঁদের প্রেমের গুজবের পুরোটাই যে সত্যি, তা জানা যায় ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে। তত দিনে হাবিব ও তিশা—দুজনেরই প্রেমই শেষ। ওই সময় প্রথম আলোকে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে তানজিন তিশা স্বীকার করেন, হাবিবের সঙ্গে প্রেমের গুজবটি সত্যি ছিল।

সেই প্রেমের বয়স ছিল দুই বছর। সৃজিত-মিথিলার প্রেম ও বিয়ে বিনোদনজগতের সর্বশেষ আলোচিত গুজব, যা পরবর্তী সময়ে বাস্তবে রূপ নিয়েছে, সেটি হলো ভারতের বাঙালি চলচ্চিত্রনির্মাতা সৃজিত মুখার্জি এবং বাংলাদেশি অভিনেত্রী মিথিলার প্রেম ও বিয়ে। ২০১৯ সালের পুরোটাতেই বাংলাদেশ–ভারতের গণমাধ্যম ব্যস্ত ছিল সৃজিত–মিথিলার প্রেমের গুঞ্জন নিয়ে। শুরুতে দুই তারকাই প্রেমকে নিছক ‘বন্ধুত্ব’ বলে প্রচার করলেও বছরের শেষ নাগাদ সব গুঞ্জনকে সত্যি প্রমাণ করে গাঁটছড়া বাঁধেন তাঁরা। গত বছর ডিসেম্বরে বিয়ে হয় তাঁদের।

সম্প্রতি ভালোবাসা দিবসে নিজেদের প্রেমের গল্পটিও বলেন সৃজিত ও মিথিলা। জানান, ফেসবুকে তাঁদের পরিচয়, এরপর হয় সাক্ষাৎ, এরপর প্রেম। আর এই প্রেম পরিণয়ে রূপ নিতেই গুজবগুলো উড়ে যায়, সব হয়ে যায় সত্যি। তাই বিনোদনের দুনিয়ায় গুজবগুলোয় আসলে কতটা গুঞ্জন আর কতটা সত্যতা, তা নিয়ে কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছানোর আগে ওপরের ঘটনাগুলোয় চোখ বুলিয়ে নিন। ‘ভালো বন্ধু’ থেকে প্রেম প্রায় দুই বছর ধরে পরিচালক অনিমেষ আইচ ও অভিনেত্রী আশনা হাবিব ভাবনার সম্পর্ক নিয়ে অনেকের মনে ছিল অনেক প্রশ্ন। বিভিন্ন সময় এই দুজনকে প্রশ্ন করা হলে তাঁরা সাফ জানিয়ে দিতেন, প্রেম নয়, তাঁরা কেবল ভালো বন্ধু এবং প্রেমের ব্যাপারটি নিছক গুজব।

অবশেষে জানুয়ারি মাসের মাঝামাঝি সময়ে ভাবনা তাঁর ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে আনুষ্ঠানিকভাবে সব গুজবের অবসান ঘটান, প্রকাশ করেন অনিমেষ আইচ ও তাঁর সম্পর্কের কথা। সেই ২০১৩ সালে দুজনের ভালোবাসার গল্প শুরু। কিন্তু বিষয়টি অনেক দিনই চাপা ছিল। অনিমেষ আইচের ভালো কাজগুলোয় সে সময় নিয়মিত পাওয়া যেত ভাবনাকে। এমনকি অনিমেষের ভয়ঙ্কর সুন্দর ছবিতেও ভাবনা অভিনয় করেছিলেন কেন্দ্রীয় চরিত্রে। এসব কারণেই গুজব বাড়তে থাকে অনিমেষ–ভাবনাকে ঘিরে। এ ছাড়া একসঙ্গে রেস্তোরাঁয় খেতে যাওয়া,

দেশ–বিদেশে দুজনের ঘুরে বেড়ানো, একে অপরের জন্মদিন উদ্​যাপনের ছবি হরদমই দেখা যেত দুজনের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের দেয়ালে। সেখানে কোনো লুকোচুরি না থাকলেও বিভিন্ন গণমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকারে দুজনই বলতেন, তাঁরা কেবল ‘ভালো বন্ধু’। কিন্তু গত মাসে ভাবনার স্বীকারোক্তির পর থেকে সব গুজবে দাঁড়ি পড়ে। জানা যায়, শিগগিরই বিয়ে করবেন তাঁরা।


ঢালিউড এর সর্বশেষ খবর

ঢালিউড - এর সব খবর