ঢাকা, বুধবার, ১ এপ্রিল ২০২০, ১৮ চৈত্র ১৪২৬

ডাবল সেঞ্চুরি ডায়নোসরপ্রেমী ছেলেকে উৎসর্গ করলেন মুশফিক

২০২০ ফেব্রুয়ারি ২৪ ১৯:১৮:২১
ডাবল সেঞ্চুরি ডায়নোসরপ্রেমী ছেলেকে উৎসর্গ করলেন মুশফিক

বাংলাদেশের ব্যাটিং ইনিংসের ১৫৪তম ওভারের কথা। জিম্বাবুইয়ান পেসার এনলোভুর ডাবল সেঞ্চুরির বলটি কাট করে পয়েন্টে ফেলেই দৌঁড়ে ক্রিজের অর্ধেকটায় এসে প্রথমে ব্যাট নিয়ে ডান হাত ও পরে মুষ্টিবদ্ধ বা হাত শূন্যে ছুঁড়লেন মুশফিকুর রহিম। এরপর দু হাত মুষ্টিবদ্ধ করে

এক সঙ্গে উঁচিয়ে ধরলেন। খানিকবাদে দু’হাত দিয়ে ইঙ্গিতে বোঝালেন ছোট কোনো শিশু হিংস্র প্রাণী যার ভীষণ পছন্দ তার জন্যই এই ডাবল সেঞ্চুরি। বিজ্ঞাপন দেশ সেরা এই ব্যাটসম্যানের এমন উদযাপনের মানে টা কি? বিষয়টি নিয়ে তখনই প্রেসবক্সে সংবাদ মাধ্যমের উৎসাহ বেড়ে যায়। গুঞ্জন উড়তে থাকে কাঁচবদ্ধ চার দেয়ালের কক্ষে, ‘কি বোঝালেন মুশফিক?

অনেকে ধারণা করেছিলেন, যেহেতু টিম ম্যানেজমেন্ট তাকে এই টেস্ট থেকে বাদ দিতে চেয়েছিলেন হয়ত তাদের উদ্দেশ্য করেই তার এমন আনকোরা উদযাপন। বিজ্ঞাপন কোনোভাবেই সঠিকটি উদঘাটন করা যাচ্ছিল না। অবশেষে সংবাদ সম্মেলনে এসে তা জানা গেল। উদযাপনের রহস্য নিজেই ভেদ করলেন টেস্টে বাংলাদেশের একমাত্র ট্রিপল ডাবল সেঞ্চুরিয়ান।

বললেন, সেঞ্চুরিটি ছেলে মায়ানকে উৎসর্গ করেছেন। ছোট্ট মায়ানের ডায়নোসর ভীষণ পছন্দ। ডায়নোসর দেখলেই নাকি তার অঙ্গভঙ্গি বদলে যায়। তাই ওমন আনন্দঘন মুহুর্তে প্রিয় পুত্রকেই নকল করার চেষ্টা করছিলেন দেশ সেরা ব্যাটসম্যান মুশি। সোমবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের সম্মেলন কক্ষে এসে বেশ স্বতস্ফুর্তভাবেই মুশফিক জানালেন, ‘সাধারণত উদযাপন আমি আগে থেকে ওরকম চিন্তা করিনি বা করার পরও যে এরকম হবে... কিন্তু ডাবল সেঞ্চুরি করার পর ভাবলাম অমার ছেলে ডায়নোসরে বড় ফ্যান।

ডায়নোসর দেখলে ও একটু অন্য রকম সেলিব্রশন করে। স্রেফ সেটাই নকল করার চেষ্টা করেছি। আমার ডাবল সেঞ্চুরিটা আমার ছেলে জন্য।’ অনেকে আবার ভেবে বসেছিলেন এই ডাবলে হয়ত চাপ মুক্তি হয়েছেন। কিন্তু মুশি বললেন, 'চাপ মুক্তির কোনো ব্যাপার ওই উদযাপনে নিহিত ছিল না।' ‘না চপ মুক্তির তো কিছু নাই। আপনি যদি খেয়াল করেন আমি শেষে টেস্ট ইনিংসেও ৭৪ রান করেছি।

তো এটা আমার কাছে কখনো চাপ মনে হয় নি বা আমি যখন খেলতে আসছি তখনও মনে হয়নি। আমার কাছে সবসময় মনে হয় যে দলে যখন খেলেব একাদশে কিভাবে নিজে অবদান রাখতে পারি।’ ২০১৮ সালের পর আজ আরেকবার মিরপুর শের-ই-বাংলায় মুশফিকুর রহিমের ব্যাট জ্বলে উঠেছিল।

সেই জ্বলনে পুড়ে খাঁক হয়ে গেছে জিম্বাবুইয়ান বোলাররা। তাতে মুশফিকের ব্যাটে ধরা দিয়েছে সাদা পোষাকে তিনটি ডাবল সেঞ্চুরি (২০৩*)। তার এই মহাকাব্যিক ইনিংস আর মুমিনুল হকের ১৩২ রানে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে চলমান টেস্টের প্রথম ইনিংসে ৬/৫৬০ ঘোষণা করেছে মুমিনুল হক ও তার দল। যা কীনা প্রায় দেড় বছর টেস্ট ম্যাচ জয়ের হাতছানি দিচ্ছে টিম বাংলাদেশকে।


খেলাধুলা এর সর্বশেষ খবর

খেলাধুলা - এর সব খবর