ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ এপ্রিল ২০২০, ২৬ চৈত্র ১৪২৬

বাদ পড়া মোস্তাফিজ-তাসকিন দলে কেন ব্যখ্যা দিলেন নান্নু

২০২০ ফেব্রুয়ারি ১৬ ১৬:৪৫:২১
বাদ পড়া মোস্তাফিজ-তাসকিন দলে কেন ব্যখ্যা দিলেন নান্নু

পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজ ও বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের প্রথম রাউন্ডের ম্যাচে বল হাতে স্বরুপে উদ্ভাসিত হয়ে উঠতে পারেননি দেশ সেরা পেসার মোস্তাফিজুর রহমান। ফলে রাওয়ালপিন্ডি টেস্টে তাকে দল থেকে বাদ দিয়েছিল বাংলাদেশ টিম ম্যানেজমেন্ট। আরেক পেসার তাসকিন আহমেদ সবশেষ

সাদা পোষাকে খেলেছিলেন সেই ২০১৭ সালের অক্টোবরে, স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে। এরপর প্রায় দুই বছরের বেশি সময় চোট ও ফর্মহীনতায় থেকেছেন জাতীয় দলের বাইরে। অবশেষে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট দিয়ে জাতীয় দলে ফিরলেন তিনি। তাসকিন ফিরেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগে (বিসিএল) পারফর্ম করে। মোস্তাফিজুর রহমানও তাই। বিসিএলে দুই ম্যাচে তাসকিনের উইকেট সংখ্যা ১০টি। পাশাপাশি তার গতিময় বোলিংকেও বিবেচনায় রেখেছে টাইগার নির্বাচকমন্ডলী।

আর মোস্তাফিজুর রহমান দুই ম্যাচে উইকেট শিকার করেছেন ৬টি। ফলে তাকে দলে ফিরিয়েছে টাইগার ম্যানেজমেন্ট। শুধু মোস্তাফিজ তাসকিনের ফেরাই নয়, পেসার আল-আমিন হোসেনকে আবার কেন বাদ দেওয়া হলো, রুবেল হোসেন আর সৌম্য সরকার কেন নেই, নবাগত ইয়াসির আলী চৌধুরী রাব্বি ও মাহমুদুল হাসানকেই বা কেন নেয়া হলো সেই ব্যাখ্যাও দিয়েছেন টাইগার প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু।

পাঠকদের উদ্দেশ্যে তা তুলে ধরা হলো:

মুস্তাফিজ কেন দলে?

নান্নু: আমাদের নির্বাচক প্যানেল থেকে বলা হয়নি। কোচ এটা চিন্তা করেছিল। কিন্তু এখন আমরা চিন্তা করছি বিসিএলে ও যেভাবে ফিরে এসেছে তাতে অবশ্যই তাকে লাল বলে বিবেচনা করা যায়। এটা আজকে সকালেই কোচের সাথে আমার কথা হয়েছে তখনই আমরা অন্তর্ভুক্ত করেছি। মুস্তাফিজের পরপর দুটো বিসিএল ম্যাচ দেখেছি এবং সে আগের মতোই বল করেছে। তাসকিন কেন দলে?

নান্নু: টেস্ট ক্রিকেটে আমরা ম্যানেজমেন্টের সাথে আলোচনা করে এখন চাচ্ছি যে যারা জোরে বল করতে পারে, যাদের গতি ১৪০ এর কাছাকাছি সে হিসাবে আমরা চিন্তা করেছি। বিসিএলে দুটো ম্যাচে... আমার বিশ্বাস যে অবশ্যই এই ম্যানেজমেন্টের অধীনে আরো ভালো করবে।

ইয়াসির আলী চৌধুরী রাব্বিকে কেন নেয়া হলো?

নান্নু: এটা মাহমুদউল্লাহর রিপ্লেসপেন্ট আমরা বলতে পারি না। ইয়াসির রাব্বি আমাদের হাই পারফরম্যান্স দলের প্লেয়ার। সে হিসেবে চিন্তা করে, এনসিএলে লংগার ভার্সনে ভালো খেলছে, গত ম্যাচেও ভালো একটা হান্ড্রেড করেছে। একটা তরুণ প্লেয়ারের মধ্যে যদি তেমন কিছু দেখি ওকে এই টিম ম্যানেজমেন্টের অধীনে আরো উন্নতি করার সুযোগ দিবো।

আল-আমিন হোসেন কেন বাদ?

নান্নু: আল-আমিন কিন্তু পাকিস্তান সিরিজের আগেই ইনজুরিতে পড়েছে। গুরুতর কোনো ইনজুরি না। কিন্তু যে ইনজুরি এতে লংগার ভার্সন ম্যাচে পুরোপুরি বল করা ওর জন্য অসুবিধার হত। দেখেন বিসিএলের এই ম্যাচটাও খেলতে পারছেনা সে, যেটা খেলার কথা ছিল। ও কিন্তু সেরে উঠতে পারেনি। লংগার ভার্সনের ক্রিকেটে লম্বা স্পেলে বল করার মতো যদি ফিট না থাকে সেক্ষেত্রে তো রিস্ক নেওয়া যায়না।

রুবেল বাদ কেন?

নান্নু: ওকে ব্যাক আপ বোলার হিসেবে নিয়েছিলাম। তারপর পাকিস্তানে গিয়ে আল-আমিনের ইনজুরির জন্য ওকে ম্যাচে নিয়েছে। আমাদের ম্যানেজমেন্টের সাথে যে আলোচনা হয়েছে, টিম ম্যানেজমেন্ট ওকে চাচ্ছে পুরোপুরি প্রস্তুত করে ফেরাতে। যেহেতু জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ঘরের সারদের সেভাবে আধিপত্য থাকবেনা। কয়টা পেস বোলার নিয়ে খেলবো তার একটা পরিকল্পনা আছে। ম্যানেজমেন্টও দেখতে চাচ্ছে আসলে ওই কারণেই কিছু নতুন প্লেয়ারকে যেমন হাসান মাহমুদকে নেওয়া।

হাসান মাহমুদ দলে কেন?

নান্নু: ওকে যখন আমরা একবছর আগে হাই পারফরম্যান্স স্কোয়াডে নিয়েছিলাম তখনই কিন্তু পরিকল্পনা ছিল আমরা যত জোরে বল করতে পারে এমন কাউকে নিবো। সেক্ষেত্রে আমাদের জোরে বল করা বোলারের অভাব ছিল যেটা ১৪০ এর কাছাকাছি ধারাবাহিক বল করতে পারে। সে হিসাবে ওর মধ্যে আমরা এই ট্যালেন্টটা দেখেছি।

দূর্ভাগ্যবশত মাঝখানে সে কিছুটা লাইনচ্যুত ছিল। আবার কামব্যাক করেছে যার কারণে সিস্টেমের মধ্যে আমরা ওকে নিয়েছি। সৌম্য সরকার কেন নেই? নান্নু: সৌম্য সরকার বিয়ের জন্য ছুটি নিয়েছে। আগামি ২২ ফেব্রুয়ারি থেকে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশের একমাত্র টেস্ট ম্যাচটি শুরু হবে। আর সেই দলেই এসেছে চারটি বড় পরিবর্তন।

জিম্বাবুয়ে টেস্ট বাংলাদেশের ১৬ সদস্যের স্কোয়াড: মুমিনুল হক (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, সাইফ হাসান, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুশফিকুর রহিম, মোহাম্মদ মিঠুন, লিটন কুমার দাস, তাইজুল ইসলাম, আবু জায়েদ চৌধুরী রাহী, এবাদত হোসেন, তাসকিন আহমেদ, মেহেদি হাসান মিরাজ, মোস্তাফিজুর রহমান, হাসান মাহমুদ ও ইয়াসির আলি চৌধুরী রাব্বি।


খেলাধুলা এর সর্বশেষ খবর

খেলাধুলা - এর সব খবর