#মিটু আন্দোলনের আঁচ এবার টালিউডেও। যৌন নিগ্রহর অভিযোগ উঠল ‌‘রসগোল্লা’ ছবি পরিচালক পাভেলের বিরুদ্ধে। সম্প্রতি ফেসবুকের একটি পোস্টকে ঘিরে ছড়ায় চাঞ্চল্য। বৃহস্পতিবার (০৭ ফেব্রুয়ারি) টালিউডের এক অভিনেত্রী অনুরূপা চক্রবর্তী একটি পোস্ট দেন ফেসবুকে, সেখানেই তিনি জানান এ কথা। প্রায় তিন বছর আগের এক অভিজ্ঞতার কথা জানান অনুরূপা।

অনুপমার লেখা ওই ফেসবুক পোস্ট অনুযায়ী, বেশ কয়েকবছর আগে অডিশনের সূত্রে আলাপ হয় পাভেলের সঙ্গে, রসগোল্লা ছবির জন্য অভিনেতা অভিনেত্রীর খোঁজ চলছে তখন। সেই সময়ই তাকে অনুরূপাকে চূড়ান্ত করেন পাভেল। এরপর প্রায়ই চিত্রনাট্য নিয়ে বসতেন তারা, পাভেলের নাকতলার বাড়িতেও যেতেন অভিনেত্রী।

তিনি লিখেছেন, আমি তখন হতাশায় ভুগছি, তেল মাখা চুল, ঢলা কুর্তি আর মেকআপ ছাড়াই পৌঁছে যাই তার (পাভেল) বাড়িতে। সেখানেই যৌন হেনস্থার শিকার হতে হয়। তারর আচরণে স্পষ্টই বোঝা গিয়েছিল আমাকে গরীব ঘরের মেয়ে মনে করেছিল পাভেল।

অভিনেত্রী আরও লিখেন, একদিন হঠাৎ পেছন থেকে জড়িয়ে ধরে আমায় চুমু খেতে শুরু করে, আমি কোনোক্রমে নিজেকে ছাড়িয়ে নিয়ে পালিয়ে আসি সেখান থেকে।

অনুরূপার অভিযোগ বিবাহিত জীবন সুখের নয় এমনও দুঃখও প্রকাশ করেন পাভেল, এমনকি তাকে বিয়ের প্রস্তাবও দেন বলেও অভিযোগ অনুরূপার। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছেন পরিচালক পাভেল। তিনি মনে করছেন ছবি মুক্তির আগে তার বিরুদ্ধে মিথ্যে অভিযোগ আনা হচ্ছে।

পাভেলের কথায়, ২০১৬ সালের ঘটনা যদি হয়ে থাকে তাহলে এতদিন পর কেন বলা হচ্ছে, তখন তো আমায় কেউ চিনতো না কাজেই অনায়াসেই অভিযোগ আনা আরও সহজ ছিল। তবে তখন সবাই চুপ থেকে এখন আার ছবির মুক্তির আগেই এসব কথা বলছে।

এদিকে অনুরূপার কথায় কার্যত ভয় পেয়ে,পরিস্থিতির চাপেই এতদিন মুখে কুলুপ এঁটেছিলেন অভিনেত্রী। বিগত বেশ কিছুদিন ধরে মিটু নিয়ে সরব মুম্বাই থেকে সংবাদমাধ্যম সর্বত্র ছড়ায় এই অভিযোগ। যার স্ফুলিঙ্গ ছড়িয়েছে টালিপাড়াতেও।

প্রসঙ্গত, ‘বাবার নাম গান্ধিজী’ ছবি দিয়ে টালিউডে পা রাখেন পাভেল। তবে ‘রসগোল্লা’ ছবির মধ্যে দিয়েই জনপ্রিয় হন পরিচালক। অন্যদিকে, এই মুহূর্তে বিরসা দাশগুপ্তর ‘ক্রিসক্রস’ ছবিতে কাজ করেছেন অনুরূপা। অভিনয় করেছেন আড্ডা টাইমসের ওয়েব সিরিজ ‘ইন দেয়ার লাইফ’-এও। জি ফাইভের ‘কালী’ সিরিজেও রয়েছেন তিনি।