ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯, ২ কার্তিক ১৪২৬

নিজের যে ছবিটা দেখে যেতে পারেনি সালমান

২০১৯ সেপ্টেম্বর ১৯ ১১:১১:৪৯
নিজের যে ছবিটা দেখে যেতে পারেনি সালমান

সোহানুর রহমান সোহান পরিচালিত ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ সিনেমার মধ্য দিয়ে ঢাকাই চলচ্চিত্রে সালমান শাহের অভিষেক হয়। এরপর চার বছরের ক্যারিয়ারে সর্বমোট ২৭টি ছবিতে অভিনয় করেন তিনি। এসব ছবিতে তিনি মৌসুমী, শাবনূর, লিমা, শাবনাজ, শাহনাজসহ অনেক জনপ্রিয় নায়িকার সঙ্গে অভিনয় করেছেন।

ছবিতে মায়ের চরিত্রে অভিনয় করতে চাননি ঢালিউডের বিউটি কুইন খ্যাত অভিনেত্রী শাবানা। এই দুঃসাধ্য কাজটি সাধন করেন প্রখ্যাত চলচ্চিত্রকার ছটকু আহমেদ। ১৯৯৬ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত এই নির্মাতার 'সত্যের মৃত্যু নেই' ছবিতে প্রথমবারের মতো মায়ের ভূমিকায় অভিনয় করেন শাবানা। জানালেন নির্মাতা ছটকু আহমেদ। তিনি বলেন, ১৯৯৫ সাল। নায়িকা হিসেবে শাবানার ক্যরিয়ার তখন রমরমা। ঠিক ওই সময়ে মায়ের চরিত্রে অভিনয়ের প্রস্তাব নিয়ে গেলাম তার কাছে।

কিন্তু তিনি বেঁকে বসলেন। তার স্বামী ওয়াহিদ সাদিক এবং অভিনেতা জসিম ও আলমগীর কোনোভাবেই মায়ের চরিত্রে অভিনয় করতে দেবেন না শাবানাকে। জসিম ও আলমগীর বললেন, শাবানা মা হয়ে গেলে আমরা নায়িকা পাব কোথায়? তখন জসিম এবং আলমগীরের নায়িকা হিসেবে শাবানার প্রতিটি ছবিই সুপারহিট। শাবানাকে বললাম তুমি গল্প শোনো, পছন্দ না হলে করোনা। তাকে গল্প শোনানো শুরু করলাম। সে যত শুনছে চরিত্রটির প্রতি তার আগ্রহ ততই বাড়ছে। এক পর্যায়ে মহাখুশিতে রাজি হয়ে গেলেন শাবানা।

ওয়াহিদ সাদিক বললেন, তুমি ওকে যাদু করেছো, নাহলে কিভাবে মা হতে রাজি হলো ও। সবাইকে বোঝালাম এটি আসলে ছবির ভাইটাল ক্যারেক্টর। উপমহাদেশে নামি-দামি তারকারা অহরহ এমন চরিত্রে অভিনয় করছেন। চরিত্রটি ছিল সালমান শাহর মা এবং একজন জজের। সালমান শাহও শাবানাকে মা হিসেবে পেয়ে খুব খুশি। কিন্তু দুর্ভাগ্য সালমান ছবিটি দেখে যেতে পারেনি। কারণ ১৯৯৬ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর মুক্তি পায় 'সত্যের মুত্যু নেই'। এর ঠিক এক সপ্তাহ আগে অর্থাৎ ৬ সেপ্টেম্বর মারা যায় সালমান।

মায়ের চরিত্রে অসাধারণ অভিনয় করেন শাবানা এবং তার অভিনয় ব্যাপক প্রশংসা পায়। ওই বছরই এ ছবিটি কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয়। সেখানেও শাবানার অভিনয়ের প্রশংসা করেন সবাই। এর পর থেকেই মা চরিত্রে শাবানার অভিনয় যাত্রা শুরু।


ঢালিউড এর সর্বশেষ খবর

ঢালিউড - এর সব খবর