ঢাকা, শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০১৯, ৪ শ্রাবণ ১৪২৬

বিএনপি থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছি : আহমেদ শরীফ

২০১৯ এপ্রিল ২৪ ০০:২৪:৫৬
বিএনপি থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছি : আহমেদ শরীফ

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাবেক সভাপতি-অভিনেতা আহমেদ শরীফ ও তার স্ত্রীর চিকিৎসার জন্য গত বৃহস্পতিবার ৩৫ লাখ টাকা অনুদান দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ নিয়ে ফেসবুকে চলছে তুমুল আলোচনা-সমালোচনা।

কেউ কেউ দাবি করছেন, আহমেদ শরীফ এক সময় বিএনপির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। ২০০৩ সালে খুলনা সরকারি মহিলা কলেজের একটি অনুষ্ঠানে ইতিহাস বিকৃত ও বঙ্গবন্ধুবিদ্বেষী বক্তব্যও দিয়েছেন। এসব অভিযোগ নিয়ে এতদিন মুখ খোলেননি আহমেদ শরীফ। তবে আজ মঙ্গলবার তিনি স্বীকার করেন, এক সময় তিনি বিএনপির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন।

আহমেদ শরীফ বলেন, ‘হ্যাঁ, একটা সময় আমি বিএনপির সঙ্গে যুক্ত ছিলাম। তাও বহু বছর আগের কথা। ১৯৯১ সালে কুষ্টিয়া সদর উপজেলা, ৩ আসন থেকে বিএনপি আমাকে মনোনয়ন দিয়েছিল। আবার দলের সিদ্ধান্তে তা প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়। ওই ঘটনার পর বিএনপি থেকে আমি মুখ ফিরিয়ে নিয়েছি।’

তবে ২০০৩ সালে খুলনা সরকারি মহিলা কলেজের অনুষ্ঠানে ইতিহাস বিকৃত ও বঙ্গবন্ধুবিদ্বেষী বক্তব্য দেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেন আহমেদ শরীফ। তিনি বলেন, ‘যে সময়টার কথা বলা হচ্ছে, ২০০৩ সাল। ওই সময় আমি অসুস্থ হয়ে দীর্ঘ দেড় বছর বিছানায় পড়েছিলাম। তখনই হায়দ্রাবাদে শুটিং করতে গিয়ে আমার পা ভেঙেছিল। ওই সময় আমি টোটালি বিছানায়। আমার কাছে দলিল-প্রমাণ আছে। চাইলে আপনারা এসে দেখতে পারেন।’

নিজের রোগ সম্পর্কে আহমেদ শরীফ বলেন, ‘বার্ধক্যজনিত কারণে আমি দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ। ঠিক মতো হাঁটাচলা করতে পারি না। ডায়াবেটিস, হাইপারটেনশন, প্রস্টেটের অসুবিধাসহ নানা অসুখে ভুগছি। কিছুদিন আগে, পিত্তথলিতে পাথর ধরা পড়ার কারণে অস্ত্রোপচারও করেছি। আমি ঠিকমতো হাটতে পারি না। অনেক আগে শুটিং করতে গিয়ে, পড়ে পা ভেঙে গিয়েছিল। সেসময় অস্ত্রোপচার করে পায়ে রড বসানো হয়েছে। ১৮ বছর ধরে ডায়াবেটিসে ভুগছি।’

আহমেদ শরীফ আরও বলেন, ‘আমার বয়স এখন ৭৪ বছর। এই বয়সে একজন মানুষ কতটুকুই সুস্থ থাকে। শরীরও এখন আগের মতো সাড়া দেয় না। দিনের বেশির ভাগ সময় ঘরে শুয়ে-বসে কাটাতে হয়। চিকিৎসার অভাবে আমার স্ত্রীর চোখটাও নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। ওর চোখের রেটিনায় সমস্যা। আমার একটি মেয়ে আফিয়া মোবাসসিরা মৌরি। পরিবার নিয়ে খুব কষ্টে দিনগুলো কাটছে আমার।’

উল্লেখ্য, অভিনেতা আহমেদ শরীফ প্রায় আট শতাধিক বাংলা ছবিতে অভিনয় করেছেন। তার অভিনীত প্রথম ছবির ‘অরুণোদয়ের অগ্নিসাক্ষী’। সুভাষ দত্ত পরিচালিত এই ছবিতে তিনি অভিনয় করেন নায়ক চরিত্রে। খলনায়ক হিসেবে প্রথম অভিনয় করেন দেলোয়ার জাহান ঝন্টুর পরিচালনায় ‘বন্দুক’ ছবিতে, যা মুক্তি পায় ১৯৭৬ সালে। তার অভিনীত সর্বশেষ মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি মনতাজুর রহমান আকবর পরিচালিত ‘দুলাভাই জিন্দাবাদ’। ছবিটি মুক্তি পায় ২০১৭ সালের ২০ অক্টোবর। আর মুক্তি অপেক্ষায় আছে শামীম আহমেদ রনি পরিচালিত ‘শাহেনশাহ’ ছবিটি।

সূত্র: দৈনিক আমাদের সময়


রাজনীতি এর সর্বশেষ খবর

রাজনীতি - এর সব খবর