ঢাকা, বুধবার, ১৯ জুন ২০১৯, ৫ আষাঢ় ১৪২৬

রূপের গোপন রহস্য ফাঁস করলেন কারিনা

২০১৯ মার্চ ২৯ ১৯:১১:২৭
রূপের গোপন রহস্য ফাঁস করলেন কারিনা

তাঁর রূপ-রহস্যের গোপন-গহন কথা জানান দিতে গিয়ে করিনা জানিয়েছেন, তাঁর সারা অঙ্গেই শুধু নয়, সময়-সুযোগ পেলেই আমন্ড অয়েল দিয়ে একটা দারুণ মাসাজও নিয়ে থাকেন তিনি। কারণ চুলে-ত্বকে-শরীরের এই আমন্ড অয়েলের মাসাজ, তাঁকে সতেজ-তরতাজা রাখতে দারুণ সাহায্য করে থাকে। আর রূপচর্চায় এই আমন্ড অয়েলের ব্যবহার কারিনা শিখেছেন তাঁর মা ববিতা কাপুর, ঠাকুমা কৃষ্ণা কাপুরের থেকে। কারণ তাঁরাও তাঁদের রূপচর্চার ক্ষেত্রে এই আমন্ড অয়েলই ব্যবহার করতেন।

সকলেই জানেন মধুতে ন্যাচারাল অ্যান্টিব্যাক্টেরিয়াল উপাদান থাকে, যা ত্বককে সুন্দর-সতেজ রাখতে খুব সাহায্য করে। মধুর মধ্যে যথেষ্ট অ্যান্টি অক্সিডেন্ট রয়েছে, যা ত্বকের বয়সকে ধরে রাখে। ত্বককে কখনও বুড়িয়ে যেতে দেয় না। ফলে ত্বকের জৌলস ধরে রাখার জন্য মধু খুবই উপকারী।

আর তাই তাঁর রূপ-লাবণ্যর কারণে এই মধু নিয়মিত ব্যবহার করেন করিনা। ত্বককে নরম, পেলব রাখার ক্ষেত্রে এই মধুর কোনও তুলনা নেই। তাই কারিনা নিয়মিত মধু দিয়ে মুখ মাসাজ করেন। তারপর মুখের সেই মধু, পরিষ্কার জল দিয়ে ধুয়ে তুলে ফেলেন। এতেই তাঁর মুখের ত্বক নরম থাকে। মুখের ত্বক উজ্জ্বল দেখায়।

বলিউডের অন্যান্য নায়িকাদের মতো করিনাও মনে করেন, প্রচুর পরিমাণে নিয়মিত জলপান করলে তাতে শরীর-স্বাস্থ্য যেমন ভালো থাকে, তাতে ত্বকও সুন্দর থাকে। সেই কারণে কারিনা নিয়মিত প্রচুর জল পান করে থাকেন। এ ছাড়াও করিনা মনে করেন প্রকৃতির জল যেমন নদীর জল, ঝরণার জল, বৃষ্টির জল…এগুলোর মধ্যে ম্যাজিকের মতো ব্যাপার-স্যাপার রয়েছে। তাঁর মতে এই প্রকৃতির জলে স্নান করলে, তাতে চুলের, ত্বকের ঔজ্জ্বল্য অনেক বৃদ্ধি পায়। সৌন্দর্যে অনেক জেল্লা আসে।

বাজার-দোকানে কিনতে পাওয়া ফেসপ্যাকের চেয়ে করিনা বাড়িতে তৈরি ফেসপ্যাকেই অনেক গুরুত্ব দেন। কারণ কেমিক্যাল জিনিসের চেয়ে, বাড়ির খাঁটি জিনিস দিয়ে তৈরি উপাদানেই নিজের রূপ-লাবণ্যের প্রতি ভরসা রাখেন কারিনা। তার জন্য একটা বাটিতে কিছুটা টক দই নিয়ে, তাতে আমন্ড অয়েল দিয়ে, সেটাকে ভালো করে মেশান।

তারপর সেটা শরীর-ত্বকে ব্যবহার করেন। টক দই ন্যাচারাল ব্লিচিং-এর কাজ করে। আর আমন্ড অয়েল স্ক্রাবের কাজ করে। ফলে বাড়ির তৈরি এই ফেসপ্যাক একদিকে যেমন ত্বকে ব্লিচের কাজ করে, অন্যদিকে ত্বকের ডেড সেল বা মৃত কোষকে মেরে ত্বককে সুন্দর, তাজা করে রাখতে সাহায্য করে। যার ফলে মুখে এক অন্য গ্ল্যামার এনে দেয় এই ফেসপ্যাক।

কারিনা মনে করেন ত্বককে যথেষ্ট পরিমাণে মসৃণ, ময়েশ্চার বা আদ্র রাখতে চোখে-মুখে ময়েশ্চারাইজার অবশ্যই ব্যবহার করা উচিত। এর জন্য করিনা যেমন দিনে দু’বার ভালো করে পরিষ্কার জলে মুখ ধুয়ে ফেলেন, তেমনই দিনে দু’বার মুখে ময়েশ্চারাইজার লাগাতে ভোলেন না। নিয়মিত ওয়ার্কআউট করতে কারিনা কখনও ভুল করেন না। কারণ তিনি মনে করেন এর কারণে শরীর থেকে যে ঘাম বের হয়, সেই ঘামের মধ্যে দিয়ে শরীরের অপ্রয়োজনীয় টক্সিন শরীর থেকে বের হয়ে তা ত্বককে উজ্জ্বল, তরতাজা রাখে।


হলিউড এর সর্বশেষ খবর

হলিউড - এর সব খবর