ঢাকা, শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

মেয়েদের সমস্যা নিয়ে একি বললেন শ্রীলেখা

২০১৮ সেপ্টেম্বর ১৪ ২১:৩৩:৩৮
মেয়েদের সমস্যা নিয়ে একি বললেন শ্রীলেখা

শ্রীলেখা মিত্র, বাংলা চলচিত্রের বর্তমানের এক অন্যতম সেরা অভিনেত্রী। ১৯৭৫ সালের ৩০ আগস্ট কলকাতায় জন্মগ্রহণ করেন শ্রীলেখা। ১৯৯৬ সালে প্রথম বার রুপোলী পর্দায় আবির্ভাব হয় তার, বিমল দের সেই রাত সিনেমার মাধ্যমে। এরপর আর তাকে পিছনে ঘুরে তাকাতে হয়নি, তিনি অভিনয় করে গেছেন একের পর এক হিট ছবিতে। পেয়েছেন অসংখ্য পুরস্কার। এছাড়াও তিনি কমেডি শো মিরাক্কেল এও প্রথম সিজন থেকে বিচারকের আসনে আছেন।

সম্প্রতি শ্রীলেখা তার ব্লগে এমন কিছু কথা বলেছেন, যার জন্য মেয়েদের কাছে তাকে খুব কথা শুনতে হচ্ছে। কি এমন বলেছিলেন তিনি তার ব্লগে। আসুন জেনে নিই।

শ্রীলেখা প্রথমেই যেটা দিয়ে তার লেখা শুরু করেন সেটা হল, ‘দাড়ি কামাতে হয় না বটে, তাই বলে কি মেয়েদের ঝঞ্ঝাট কম নাকি?’ এর সপক্ষে তিনি আবার যুক্তি ও দিয়েছেন, তিনি ব্লগে লিখেছেন যে ‘হাজার হাজার টাকার ক্রিম মাখা, ফেসিয়াল করা গাল মেয়েরা ব্লেড দিয়ে কামাতেই বা যাবে কেনো বলতে পারেন? যেহেতু দাড়ি গোফ নেই তাই লক্ষ ব্লেডে কামানোর প্রয়োজনও নেই।’ তিনি আরও মজা করে বলেছেন যে, ‘লক্ষ ব্লেডেও কামালে যে উঠবে না গোঁফ আর দাড়ি, বুঝলে নারী!’

এরপর তিনি ছেলেদের উদ্দেশ্যে বলেছেন যে, অনেক কিছুই তো তোমরা করতে পারো, যেটা আমরা করতে পারি না। তিনি বলেছেন যে, হাজার হাজার টাকার ক্রিম মাখা, ফেসিয়াল করা গাল, মেয়েরা কেনই বা কামাতে যাবে? দাড়ি গোফ নেই, তাই লক্ষ ব্লেডে কামানোর প্র‍য়োজনও নেই।

তিনি এরপর আরও যোগ করেছেন যে, তবে যেসব মেয়েরা নিজেদের ত্বকের যত্ন নিজেদের টাকায় করেন, তাদের স্যালুট। সুতরাং এই লেখাটা যে ফেমিনিজম নিয়ে একেবারেই নয়, সেটা নিশ্চয়ই বুঝতে পারছেন সকলে। এরপরই তিনি আসল প্রশ্ন বান টা ছুড়েছেন পুরুষদের প্রতি, তিনি ব্লগে লিখেছেন যে, ঘরের, বাইরের এবং একই সঙ্গে ত্বকের যত্ন নেওয়া নারীগন, যাঁরা ঘাড় কাত বা মাথা নত করেন না, কোন পরিস্থিতি তেই, তাদের দাঁড়ি গোঁফ ওয়ালা বিরাট কোহলি দের কাছে একটা ছোট্ট প্রশ্ন আছে,

অনেক কিছুই তো তোমরা পারো, যেটা আমরা পারি না। হিসু পেলে রাস্তায় দাঁড়িয়ে পড়তে পারো, কিন্তু আমরা তো সেটা পারি না। তোমরা জানো, আমি যখন দূরে কোথাও শো করতে যাই, তখন হিসেব করে দেখি ঘন্টায় কত লিটার জল খেলে নেচার্স কল কে আটকে রাখা সম্ভব। কারণ পাবলিক টয়লেট গুলো তো আর ব্যবহার করার মতো নেই।

রাস্তায় যে শৌচালয় গুলো আছে, আমি খবর নিয়ে দেখেছি, সেখানে ভাইরাস আর ব্যাক্টেরিয়া আর দুর্গন্ধ একসাথে অবস্থান করে। আর মেয়েদের ও বলিহারি, নিজেদের বাড়ির বাথরুম টা পরিষ্কার করে রাখতে পারো, তাহলে এই পাবলিক টয়লেট গুলো কি দোষ করলো?

তো শ্রীলেখা মিত্র তার ব্লগে এসব লিখেছেন, ছেলে মেয়ে নির্বিশেষে কেউই তার তীর বর্ষণ থেকে মুক্তি পাননি।

এই লেখা টা সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ হওয়ার পর থেকেই বিশেষত মেয়েরা তার উপরে খুবই ক্ষুব্ধ হয়ে গেছে। তবে শ্রীলেখা মিত্র নিজে এসব বিষয়ে তেমন কোন আমলই দিচ্ছেন না। তার কথায়, আমার কথা আমি বলেছি, আর আমি সত্যি কথাই সব বলেছি। এবার কে কি ভাবলো সেটা তাদের ব্যাপার। এখন দেখার কবে এই ঝামেলা থেকে শ্রীলেখা মিত্র নিজে মুক্তি পান।


সমকালীন এর সর্বশেষ খবর

সমকালীন - এর সব খবর