ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ আগস্ট ২০১৮, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৫

ম্যাচ পাতানোর আঙুল রানাতুঙ্গা–ডি সিলভার দিকেও!

২০১৮ জুলাই ৩১ ১০:৫৮:৪০
ম্যাচ পাতানোর আঙুল রানাতুঙ্গা–ডি সিলভার দিকেও!

১৯৯৬ সালে লঙ্কানদের বিশ্বকাপ জয়ে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন অর্জুনা রানাতুঙ্গা, তাঁর মূল সেনাপতি ছিলেন অরবিন্দ ডি সিলভা। শ্রীলঙ্কার ক্রিকেট ইতিহাসে এ দুজনকে কিংবদন্তিরই মর্যাদা দেওয়া হয়। কিন্তু এ দুজনের বিপক্ষে যদি ম্যাচ পাতানোর অভিযোগ ওঠে, তাহলে চমকে উঠতেই হয়।

কেবল বিশ্বকাপই নয়, শ্রীলঙ্কার ছোট দল থেকে বড় হয়ে ওঠার পেছনে এ দুই ক্রিকেটারের ভূমিকা অসামান্য। কিন্তু এ দুজনই নাকি প্রথম লঙ্কান ক্রিকেটার, যাঁদের বিরুদ্ধে ম্যাচ পাতানোর গুরুতর অভিযোগ উঠেছিল।

বোমাটা ফাটিয়েছেন শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের সাবেক সভাপতি থিলাঙ্গা সুমাথিপালা। তিনি জানিয়েছেন, রানাতুঙ্গা আর ডি সিলভা ‘গুপ্ত’ নামের এক জুয়াড়ির কাছ থেকে নগদ ১৫ হাজার ডলার ঘুষ নিয়েছিলেন। সে সময় তাঁদের বিরুদ্ধে শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড কোনো প্রকার তদন্ত চালানো থেকে নিজেদের বিরত রেখেছিল।

রানাতুঙ্গার সঙ্গে সুমাথিপালার সম্পর্কটা কখনোই মধুর ছিল না। সুমাথিপালা যত দিন শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের দায়িত্বে ছিলেন, তত দিনই তাঁর কড়া সমালোচনা করে গেছেন রানাতুঙ্গা। কিছুদিন আগে বিশ্বকাপজয়ী লঙ্কান দলপতিই সুমাথিপালার পরিবারের বেশ কয়েকজন সদস্যের বিরুদ্ধে ম্যাচ গড়াপেটা থেকে বিপুল পরিমাণ অর্থ আয়ের অভিযোগ তোলেন। এই মুহূর্তে শ্রীলঙ্কার ক্যাবিনেট মন্ত্রী রানাতুঙ্গার মতে, শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট যে এখন মুখ থুবড়ে পড়েছে তার মূল কারণ সুমাথিপালার দুর্নীতিগ্রস্ত প্রশাসন।

গত ৩০ মে রানাতুঙ্গার ভাই নিশান্থা রানাতুঙ্গা শ্রীলঙ্কা ক্রিকেটের নির্বাচনের বিরুদ্ধে সে দেশের সর্বোচ্চ আদালতে একটি রিট পিটিশন দায়ের করেন। যার ফলে সুমাথিপালার নতুন করে বোর্ডপ্রধান নির্বাচিত হওয়ার পথ বন্ধ হয়ে গেছে। শ্রীলঙ্কার ক্রীড়ামন্ত্রী সেই রিটের পরিপ্রেক্ষিতে ক্রিকেট বোর্ড পরিচালনার জন্য একটি অন্তর্বর্তীকালীন কমিটি গঠন করে দিয়েছেন।

সুমাথিপালার এই অভিযোগ অবশ্য এখনো খণ্ডন করে কোনো মন্তব্য করেননি রানাতুঙ্গা, ডি সিলভাদের কেউই।


খেলাধুলা এর সর্বশেষ খবর

খেলাধুলা - এর সব খবর