ঢাকা, বুধবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

ফের একই পরিবারের ৭ জনের আত্মহত্যা

২০১৮ জুলাই ৩১ ০৯:৪৪:৪৪
ফের একই পরিবারের ৭ জনের আত্মহত্যা

ভারতের রাজধানী দিল্লির বুরারিতে একই পরিবারের ১১ সদস্যের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধারের রহস্যের জট না খুলতেই এবার ঝাড়খণ্ডেও ফের একই কাণ্ড ঘটেছে।

রাঁচির একটি বাড়িতে পাওয়া গেছে একই পরিবারের ৭ সদস্যের মৃতদেহ। তাদের মধ্যে ৭ ও ৪ বছরের দুটি শিশুও রয়েছে।

পুলিশ জানায়, রোববার রাতে এ ঘটনা ঘটেছে। একটি বড় প্রাইভেট কোম্পানির কর্মকর্তা দীপক কুমার ঝা তার বাবা-মা, স্ত্রী, দুই সন্তান ও ভাইকে নিয়ে আত্মহত্যা করেছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

আর্থিক টানাপড়েনের জেরেই তারা আত্মহত্যার পথ বেছে নেন বলে প্রাথমিক তদন্তে ধারণা করছে পুলিশ।

রাঁচিতে তাদের ভাড়া করা বাড়িতে মৃতদেহগুলো খুঁজে পাওয়া যায়। তার মধ্যে দীপক ও তার ভাইয়ের লাশ সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলছিল।

দীপকের বাড়িওলা এ. মিশ্র বলেন, ৪০ বছরের দীপক নিজের ব্যবসা দাঁড় করানোর চেষ্টা করছিলেন। সেজন্য তিনি বড় অংকের ঋণ নিয়েছিলেন। তার বছর তিরিশের ছোট ভাই রুপেষ ঝা বেকার ছিলেন।

দীপকের বাবা-মা, স্ত্রী ও দুই ছেলেমেয়ের মৃতদেহ বিছানার উপর পড়েছিল। এখন পর্যন্ত কোনো সুইসাইড নোট খুঁজে পায়নি পুলিশ। আত্মহত্যার কারণ অনুসন্ধানে তদন্ত চলছে।

রাঁচি পুলিশের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা বলেন, “প্রাথমিকভাবে এটি আত্মহত্যার ঘটনা বলেই মনে হচ্ছে। দেখা যাক তদন্তে কি বেরিয়ে আসে।”

দীপকের মেয়ের স্কুলভ্যান তাকে তুলতে বাড়িতে এসে হর্ন বাজালেও শিশুটি বাইরে না আসায় তার এক সহপাঠী বাড়িতে ঢুকে মৃতদেহগুলো দেখতে পায়।

ঝাড়খণ্ড রাজ্যে গত ১০ দিনে এটি গণআত্মহত্যার দ্বিতীয় ঘটনা।

এর আগে হাজারিবাগে একটি বাড়ি থেকে ঋণে জর্জরিত এক পরিবারের ছয় সদস্যের মৃতদেহ খুঁজে পাওয়া গিয়েছিল।

তারও আগে গত ১১ জুলাই দিল্লির বুরারিতে এক পরিবারের ১১ সদস্যের ‍মৃতদেহ পুরো ভারতকে নাড়িয়ে দেয়। পুলিশ এখনো কোনো ঘটনারই কূলকিনারা করতে পারনি। তার মধ্যেই নতুন আরেকটি ঘটনা ঘটলো।


বহির্বিশ্ব এর সর্বশেষ খবর

বহির্বিশ্ব - এর সব খবর