ঢাকা, সোমবার, ২২ জানুয়ারি ২০১৮, ৯ মাঘ ১৪২৪

শিক্ষাজীবন শুরু করলো গোপালগঞ্জের যমজ পাঁচ ভাই বোন

২০১৮ জানুয়ারি ০২ ০১:৫৯:৪৫
শিক্ষাজীবন শুরু করলো গোপালগঞ্জের যমজ পাঁচ ভাই বোন

নতুন বই হাতে শিক্ষাজীবন শুরু করলো গোপালগঞ্জের পাঁচ যমজ শিশু। নতুন বছরে একই পোষাকে নতুন বই হাতে পাঁচ ভাই-বোন বেশ আনন্দে কাঁটিয়েছে।

শিক্ষাজীবন শুরু করলো গোপালগঞ্জের যমজ পাঁচ ভাই বোন

সোমবার দুপুরে বাবা-মায়ের হাত ধরে তারা গোপালগঞ্জ সদর উপজেলার ৮১ নং করপাড়া মধ্য সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে একই সাথে প্রাক প্রাথমিক শিশু শ্রেণীতে ভর্তি হয়।

পাঁচ যমজ শিশুর স্কুলে আসার খবরে তাদের দেখার জন্য বিপুল সংখ্যক অভিভাবক ভীড় করেন। শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা স্কুলে তাদের বরণ করে নেন। পরে তাদের হাতে বই তুলে দিয়ে স্কুলের বই উৎসব শুরু করেন।

এরা হলো, রুবাইয়া খান হীরা, রুশরা খান মনি, রামিসা খান মুক্তা, রাইসা খান মালা ও মাহির গফ্ফার মানিক। এ সময় স্কুলের প্রধান শিক্ষক আশীষ কুমার রায়, স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নজরুল ইসলাম খান টিটো, তাদের বাবা করপাড়া ইউনিয়নের সাবেক মেম্বার ও ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী গফ্ফার খান ও মা গৃহিণী সোমাইয়া খানমসহ অভিভাবকরা উপস্থিত ছিলেন।

যজম ওই পাঁচ শিশু ভবিষ্যতে বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে নিজেদের নিয়োজিত করবে বলে অভিব্যক্তি প্রকাশ করেন।

মা সোমাইয়া খানম সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন যাতে তার সন্তানরা ভাল মানুষ হতে পারে এবং তাদের মনবাসনা পূরণ হয়।
নতুন বই হাতে শিক্ষাজীবন শুরু করলো গোপালগঞ্জের যমজ পাঁচ ভাই বোন

বাবা গফ্ফার খান বলেন, পাঁচ সন্তানকে এক সাথে স্কুলে ভর্তি করতে পেরে তিনি অনেক আনন্দিত।তার সন্তানরা পড়াশোনা শেষ করে যাতে দেশ সেবায় নিজেদের আত্ন-নিয়োগ করতে পারে, তার জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া চেয়েছেন।

স্কুলের প্রধান শিক্ষক আশীষ কুমার রায় বলেন, পাঁচটি যমজ শিশু তার স্কুলে আজ ভর্তি হয়েছে এজন্য তিনি অনেক অনেক আনন্দিত। তাদের লেখাপড়ার প্রতি তিনি বিশেষ নজর রাখবেন বলে জানান।

স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি নজরুল ইসলাম খান টিটো বলেন, ওই ৫ যমজ শিশু যাতে সঠিক ভাবে লেখা পড়া করতে পারে তার জন্য সর্বাত্বক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানালেন স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি।

প্রসঙ্গত, বিগত ২০১২ সালের ২১ জুলাই ওই পাঁচ শিশু জন্মগ্রহন করে।

উপরে