ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০১৭, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

আমি কি বাংলাদেশের ব্যাংকের মালিক- সাফাতের বাবা

২০১৭ মে ১৫ ২২:০১:২১
আমি কি বাংলাদেশের ব্যাংকের মালিক- সাফাতের বাবা

এক সুত্র থেকে জানা গিয়েছে বনানীর ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামী সাফাত আহমেদ প্রতিদিন তার বাবার কাছ থেকে দুই লাখ টাকা করে হাত খরচ নেন। কিন্তু তার বাবা, আপন জুয়েলার্সের অন্যতম মালিক দিলদার আহমেদ এ বিষয়ে বলেন, ‘আমি কি বাংলাদেশ ব্যাংকের মালিক? আমি এতো টাকা কোথায় পাবো?’

দিলদার আহমেদ আজ ঢাকা ভিত্তিক একটি অনলাইন সংবাদ মাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দেন। সেখানে ছেলের হাত খরচের টাকার বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘আমার ছেলে ব্যবসার কাজে সহায়তা করে। এ জন্য তাকে

প্রতি মাসে ৫০ হাজার করে টাকা দেয়া হয়। এর বাইরে তার কোনো আয় নেই এবং তার নামে কোনো সম্পত্তিও নেই। আর দৈনিক দুই লাখ টাকা আমি কোত্থেকে দিবো? আমি কি বাংলাদেশ ব্যাংকের মালিক?’

অভিযোগ আছে, সাফাত ও তার বন্ধুদের হাতে নির্যাতিত দুই নারী মামলা করতে গেলে পুলিশ তা নিতে অস্বীকার করে। দিলদার আহমেদ এ জন্য পুলিশকে ১০ কোটি টাকা দেয়ার প্রস্তাব দিয়েছিলেন বলেও অভিযোগ আছে।

এ বিষয়ে দিলদার বলেন, ‘টাকা কি গাছে ধরে? আমি পুলিশকে কোনো টাকা অফার করিনি। এই মামলা নিয়ে পুলিশ তাদের কাজ করছে। তদন্ত হচ্ছে। এরপর আপনারা সব জানতে পারবেন। ’

উল্লেখ্য, দিন কয়েক আগে দুজন বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বনানী থানায় ধর্ষণের মামলা করেন। এই মামলার প্রধান আসামী সাফাত। তিনি আপন জুয়েলার্সের অন্যতম মালিক দিলদার আহমেদের ছেলে।

ওই মামলার পরই মূলত গোয়েন্দারা আপন জুয়েলার্সের এই মালিকের সম্পদ এবং ব্যবসা বিষয়ে অনুসন্ধানে নামে। মামলার অভিযোগে বলা হয়, গত ২৮ মার্চ জন্মদিনের পার্টির কথা বলে নির্যাতিতা দুই ছাত্রীকে বনানীর হোটেল রেইনট্রিতে ডেকে নেন সাফাত ও তার বন্ধুরা। এরপর সেখানে তাদের উপর নির্যাতন করা হয় বলে অভিযোগ করেছেন ওই দুই ছাত্রী।

সমকালীন এর সর্বশেষ খবর

সমকালীন - এর সব খবর

উপরে