ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ নভেম্বর ২০১৭, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

চিরকুমার থেকে যুগল বন্দি রেলমন্ত্রী, ঢাকায় ফুলশয্যা

২০১৪ নভেম্বর ০১ ০১:৪৫:০১
চিরকুমার থেকে যুগল বন্দি রেলমন্ত্রী, ঢাকায় ফুলশয্যা

চিরকুমার সংঘের সদস্য থেকে প্রত্যাহার করেছেন আগেই তবে চিরকুমার নাম ঘোচালেন আজই। রেলমন্ত্রী মুজিবুল হকের সুদীর্ঘকালের একাকিত্ব হয়েছে দূর। তাইতো বাজলো বিয়ের সানাই। সোনালি হেমন্তে এই যাত্রায় তার চিরসঙ্গী হলেন হনুফা আক্তার রিক্তা।

আজ শুক্রবার কুমিল্লার চান্দিনার কংগাই গ্রামে রিক্তার বাড়িতে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সারা হয়। রাতেই ঢাকার মন্ত্রিপাড়ার বাসায় হবে তাদের ফুলশয্যা। কাজী সিদ্দিকুর রহমান মন্ত্রীর বিয়ে পড়ান। মন্ত্রীর ঘনিষ্টজন হিসেবে পরিচিত হাসেম চৌধুরী উকিল বাবার দায়িত্ব পালন করেন।

বিয়েতে উপস্থিত ছিলেন মহিলা ও শিশুবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ, সাংসদ আলী আশরাফ, আবদুল মতিন খসরু, তাজুল ইসলাম, সাবেক সাংসদ নাসিম উল আলম চৌধুরী, চট্টগ্রামের ডিআইজি শফিকুল ইসলাম, কুমিল্লার জেলা প্রশাসক পুলিশ সুপারসহ গণ্যমান্য ব্যক্তি।

মুজিব-রিক্তার বিয়ের সাক্ষী ছিলেন- কিবরিয়া মজুমদার, খোকন রেজা ও ফজলুল করিম। এদের মধ্যে কিবরিয়া বর এবং অন্য দুজন কনে পক্ষের।

বিকেল ৩টা ১৭ মিনিটে কাবিননামায় সই করেন রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক ও কনে হনুফা আক্তার রিক্তা। বিয়ের দেনমোহর ছিল ৫ লাখ ১ টাকা। আসরেই তা পরিশোধ করেন মন্ত্রী।

এর আগে আজ শুক্রবার সকালে মন্ত্রিপাড়ার বাসা থেকে শতাধিক গাড়ি নিয়ে শুরু হয় রেলমন্ত্রীর বরযাত্রা। দুপুর একটার দিকে দাউদকান্দির শহীনগর জামে মসজিদে মন্ত্রী জুমার নামাজ আদায় করেন। বরযাত্রায় যাতে সামান্য বিঘ্ন না ঘটে, তা নিশ্চিত করে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। বরকে স্বাগত জানাতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মোড়ে মোড়ে তৈরি করা হয় প্যান্ডেল।

বিকেল ৩টার একটু আগে প্রায় সাতশ বরযাত্রী নিয়ে কনের বাড়িতে পৌঁছান বর। তাকে অভ্যর্থনা জানাতে আগেই প্রস্তুত ছিল সব। জামাইয়ের কয়েকজন শ্যালিকাকেও দেখা গিয়েছে গেইটে বরকে স্বাগত জানানোর আয়োজনে। গেটের অপর প্রান্তে পৌঁছতে শ্যালিকার দলকে দিতে হয়েছে ১ লাখ ১ টাকা।

জাতীয় এর সর্বশেষ খবর

জাতীয় - এর সব খবর

উপরে