ঢাকা, সোমবার, ২০ নভেম্বর ২০১৭, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

শ্বেতার মুক্তির জন্য প্রভাবশালীদের চাপ

২০১৪ অক্টোবর ৩০ ১১:৩২:০৬
শ্বেতার মুক্তির জন্য প্রভাবশালীদের চাপ

কিছুদিন আগে ভারতের হায়দারাবাদের বানজারা হিলসের হোটেল থেকে অনৈতিক কাজ করার সময় গ্রেপ্তার হন বলিউডের নামিদামি তারকা শ্বেতা প্রসাদ।

এ নিয়ে মিডিয়ায় ব্যাপক ঝড় ওঠে। তারপর থেকে শ্বেতা প্রায় গত একমাস ধরে আতক অবস্থায় রয়েছেন। শ্বেতাকে মুক্তি দিতে বেশ কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তিত্ব রীতিমতো চাপ সৃষ্টি করছেন প্রশাসনের উপর।


প্রকৃত অর্থে এই ঘটনাকে খতিয়ে দেখলেই বোঝা যাবে এটি কেবল ফিল্ম, অর্থ, ক্ষমতা ও ব্যবয়াসীক দুনিয়ার সঙ্গে যুক্ত। রাষ্ট্রীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেত্রী শ্বেতা সেপ্টেম্বর মাসে হঠাৎই লাইমলাইটে আসেন যখন তাকে একটি পাঁচতারা হোটেল থেকে অনৈতিক কর্মকাণ্ডের অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়। শ্বেতা তার বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ স্বীকার করেন ও জানান আর্থিক খরচ যোগানোর কারণেই এই পদক্ষেপ নিয়েছিলেন তিনি।


কথাটা যেখানে নয় কথা হলো, আপাতত এই মামলায় এক নতুন মোড় এনে দিয়েছে এই খবর। প্রভাবশালী ব্যক্তিদের একাংশ চাননা যে শ্বেতা বেশিদিন আতক থাকুন, কেন চাই না তা হয়ত জানি না। তবে এথেকে এটা স্পষ্ট যে শ্বেতা বেশিদিন পুলিশ হেফাজতে থাকলে হাই প্রোফাইল সেক্স র‍্যাকেটের অনেক বড় নামই প্রকাশ্যে আসতে পারে। অর্থাৎ শ্বেতা মুখ খুললে অনেকেই পড়তে পারেন বিপদে।


ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের সূত্র অনুযায়ী, এই অভিনেত্রীকে ছাড়ানোর জন্য যেভাবে চাপ বাড়ছে তাতে একথা স্পষ্ট যে এই সেক্স র‍্যাকেটের সঙ্গে অনেক নামীদামী ব্যক্তিই জড়িয়ে আছেন। তাদের চিন্তা, শ্বেতা বেশিদিন পুলিশ হেফাজতে থাকলে তাদের নাম প্রকাশ্যে আসতে পারে। তাই এই প্রভাবশালীদের দল এই চেষ্টাই করছেন যাতে ২৩ বছরের এই সুন্দরী অভিনেতী যত তাড়াতাড়ি সম্ভব জেল থেকে ছাড়া পান। যাতে তারা অভিনেত্রীর সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে পারেন। এবার এই প্রভাবশালীরা কারা সেটাই বড় প্রশ্ন। তারই উত্তর খুঁজতে চাচ্ছে অনেকেই।

উপরে