ঢাকা, শনিবার, ২৫ নভেম্বর ২০১৭, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

শাকিবের শেষ রক্ষা হবে কি!

২০১৪ অক্টোবর ২৯ ১১:৪১:৪৩
শাকিবের শেষ রক্ষা হবে কি!

এসএ হক অলিক ‘এক পৃথিবী প্রেম’র শুটিং শুরু করছেন ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহ থেকে। এ সিনেমায় তিনি নতুন নায়ক আসিফ ও তিন সিনেমার

নায়িকা আইরিনকে জুটি করেছেন। নতুন জুটি নিয়ে সিনেমায় এই প্রথম অলিক কাজ করছেন। এর আগে হৃদয়ের কথা ও আকাশ ছোঁয়া ভালবাসা সিনেমা দুইটি তিনি রিয়াজ-পূর্ণিমাকে নিয়ে নির্মাণ করেন। তবে প্রায় পাঁচ বছর পর অলিক শুধু এক পৃথিবী প্রেম নয়, আরও একটি সিনেমা নির্মাণ করতে যাচ্ছেন। প্রথমটির কাজ শেষ করার পরই দ্বিতীয় সিনেমাটির কাজ শুরু করবেন। এ সিনেমায় নায়ক হিসেবে থাকবে শাকিব ও নতুন একজন নায়িকা।

প্রাথমিকভাবে সিনেমাটির নাম রাখা হয়েছে ‘আরও ভালোবাসব তোমায়’। এ নাম পরিবর্তনও হতে পারে। গল্প অলিক নিজেই লিখেছেন। শুটিং শুরু করবেন আগামী বছর ফেব্রুয়ারির ১০ তারিখ থেকে। তার আগে এক পৃথিবী প্রেমের শুটিং শেষ করবেন। গত শনিবার সিনেমাটিতে শাকিবকে নেয়ার বিষয়টি চূড়ান্ত হয়। এগুলো হচ্ছে প্রাথমিক তথ্য। তবে অলিকের সিনেমায় শাকিব কিভাবে অন্তর্ভুক্ত হলেন, তার পেছনেও কিছু তথ্য রয়েছে। বছর কয়েক আগে শাকিব তাকে নিয়ে অলিককে একটি সিনেমা নির্মাণের প্রস্তাব দিয়েছিলেন।

অলিক তখন শাকিবের সিডিউল ঘাপলা করার কর্মকা- দেখে না করে দিয়েছিলেন। কারণ অলিক যা কিছু নির্মাণ করেন, তা তার মনের মতো করে সময় নিয়ে করেন। এজন্য শিল্পীদের অনেক সময় দিতে হয়। সে সময় শাকিব যে অলিকের ইচ্ছা অনুযায়ী সময় দিতে পারবে না, সিডিউল ঘাপলা করবে বিষয়টি জেনেই না করে দিয়েছিলেন। অর্থাৎ অলিক জেনেশুনে বুঝে বিষ পান করতে চাননি। প্রশ্ন আসতে পারে তাহলে এখন কেন শাকিবকে নিয়ে অলিক সিনেমা নির্মাণ করছেন? এ প্রশ্নের উত্তর সরল।

শাকিবের হাতে এখন নতুন কোনো সিনেমা নেই। যারা চলচ্চিত্র ব্যবসার প্রকৃত খোঁজ-খবর রাখেন, তারা ভালো করে জানেন, ঈদসহ এ বছর তার মুক্তিপ্রাপ্ত কোন সিনেমাই আশানুরূপ সাফল্য পায়নি। অনেক প্রযোজককে লোকসান গুনতে হয়েছে। দর্শক এখন আর তার একঘেয়ে ধারার অভিনয় দেখতে চায় না। বলা যায়, তাকে প্রত্যাখ্যান করছে। ফলে তার সিনেমাগুলো ব্যবসা করছে না। যারা সিনেমা ব্যবসায়ী তারা শাকিবের সিনেমার এই ব্যর্থতার কারণে তাকে নিয়ে আর সিনেমা নির্মাণে আগ্রহ দেখাচ্ছেন না। এর ফলে দিন দিন শাকিব বেকার হওয়ার পথে অগ্রসর হচ্ছেন।

পরিস্থিতি বুঝে শাকিব এখন বিভিন্ন নির্মাতা ও প্রযোজককে অনুরোধ-উপরোধ করার প্রক্রিয়া অবলম্বন করেছেন। এতে কোন কোন নির্মাতা, যারা প্রভাবশালী তারা কঠিন কঠিন শর্ত দিয়ে তাকে নিচ্ছেন। যেমন প্রযোজক-পরিচালক মোহাম্মদ হোসেনের নতুন একটি সিনেমায় শাকিব সুযোগ পেয়েছেন। সর্বশেষ অলিকের পরিচালনাধীন সিনেমায়ও সুযোগ পেয়েছেন। এ সিনেমাটি প্রযোজনা করছেন চলচ্চিত্রের প্রভাবশালী প্রযোজক খোরশেদ আলম খসরু। তারা শাকিবকে যেসব শর্ত দিয়েছেন সেগুলো বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা গেছে।

শর্তগুলোর মধ্যে রয়েছে, পারিশ্রমিক নিয়ে কোন ধরনের বারগেইনিং চলবে না। যা দেয়া হবে, তাই নিতে হবে। সিডিউল নিয়ে ঘাপলা বা টালবাহানা চলবে না। সিডিউল অনুযায়ী কাজ করতে হবে। শাকিব এসব শর্ত মেনে নেয়ায় উল্লেখিত দুইটি সিনেমায় সুযোগ পেয়েছেন। আর যার হাতে নতুন কোন সিনেমা নেই, তার হাতে তো অঢেল সময় থাকারই কথা। এ কারণে শাকিব অলিকের পরিচালনাধীন সিনেমার সিডিউল এখনই দিতে চাইলেও অলিক স্পষ্ট করে বলে দিয়েছেন, তার এখন সিডিউল নেই। এখন তিনি এক পৃথিবী প্রেম নিয়ে ব্যস্ত।

আগে এ সিনেমার কাজ শেষ হবে, তারপর পরেরটি শুরু করা হবে। সে সময় পর্যন্ত শাকিবকে অপেক্ষা করতে হবে। অলিক কেন শাকিবকে নিয়ে এই সময়ে সিনেমা করছেন, তার ব্যাখ্যা পাওয়া গেল। তবে পাশাপাশি আরেকটি প্রশ্নও এসে যায়। আর তা হলো, অলিকের সিনেমা দিয়েও কি শাকিবের শেষ রক্ষা হবে? চলচ্চিত্র বিশ্লেষকরা বলছেন, টাইটানিক যখন ডুবে, তখন কোন কিছু দিয়েই তা ঠেকিয়ে রাখা যায়নি। শাকিবের অবস্থাও এখন তাই।

তারা এ প্রশ্নও করছেন, অলিক শাকিবকে দিয়ে যেভাবে শুটিং করতে চাইবেন বা তার কাছ থেকে যে ধরনের অভিনয় প্রত্যাশা করবেন, শাকিব তা করতে বা ধারণ করতে পারবেন তো? কারণ শাকিব মৌলিক গল্পের সিনেমায় অভিনয় করেননি বললেই চলে। একই ধারার অভিনয় করে গিয়েছেন। এই ধারার বাইরে গেলেই তো তিনি নবিশ হয়ে যাবেন। নিজের প্রচলিত ধারা ভাঙতে পারবেন না। আর শাকিব এমনই এক নায়ক যাকে কখনোই পরিশ্রম করে কাজ করতে হয়নি।

তিনি নিজ ইচ্ছায় যখন খুশি যেভাবে কাজ করতে চেয়েছেন, তার সিনেমার পরিচালকরাও সেভাবেই কাজ করতে বাধ্য হয়েছেন। তবে অলিকের ক্ষেত্রে এমনটা না-ও হতে পারে, আবার হতেও পারে। যেহেতু নায়কটি শাকিব, তাই তার উপর আস্থা রাখা যে কোন নির্মাতার পক্ষেই কঠিন। যাই হোক, অলিক একটি ডুবন্ত জাহাজকে কতটা টেনে তুলতে পারবেন, এটাই এখন দেখার বিষয়।

উপরে