ঢাকা, বুধবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৭, ২৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কমানোর উপায়

২০১৪ আগস্ট ১৬ ১৩:৪৫:২৯
হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কমানোর উপায়

হার্ট অ্যাটাক অথবা স্ট্রোক সমগ্র বিশ্বেরই উদ্বেগের বিষয়। উন্নত ও উন্নয়নশীল দেশগুলোতে এ রোগে আক্রান্ত হওয়ার মাত্রা বেড়েই চলেছে।

যদিও স্বল্প ও মধ্য আয়ের দেশগুলোতে এ রোগে আক্রান্তের পাঁচ জনের মধ্যে চারজনই মৃত্যুবরণ করে থাকে বলে ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশনের (হু) প্রতিবেদন থেকে জানা যায়। তারা আরো জানায়, বিশ্বে গড়ে প্রতি বছর এ রোগে অন্তত এক কোটি ৭৩ লাখ মৃত্যুবরণ করে থাকে। বিশ্বব্যাপী সবচেয়ে বড় ঘাতক ব্যাধিটিকে প্রতিরোধ করার দিকেই জোর দিয়েছে বিশ্ব সংস্থাটি।

কিভাবে হার্ট অ্যাটাক অথবা স্ট্রোক এড়ানো যায়: হু’র প্রতিবেদন একটি সুখবর দিয়েছে যে, প্রাথমিক পর্যায়ে ৮০ শতাংশ হার্ট অ্যাটাক ও স্ট্রোক প্রতিরোধ করা সম্ভব। স্বাস্থ্যকর খাবার, নিয়মিত কায়িক শ্রম এবং তামাক জাতীয় পণ্য বর্জন এ রোগ প্রতিরোধের মূল চাবিকাঠি।
*স্বাস্থ্যকর খাবার: সুস্থ হার্ট ও রক্ত সঞ্চালন ঠিক রাখার জন্য সুষম খাদ্য সবচেয়ে বেশি জরুরী। এ জন্য পর্যাপ্ত শাক-সবজি খাওয়াকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। পর্যাপ্ত পরিমাণে শস্য জাতীয় খাবার, চর্বিহীন মাংস, মাছ, ডাল খেতে বলা হয়েছে। এছাড়া সীমিত আকারে খেতে বলা হয়েছে লবণ, সুগার ও ফ্যাট।
নিয়মিত কায়িক পরিশ্রম: প্রতিদিন অন্তত ৩০মিনিট কায়িক পরিশ্রম করে রক্ত সঞ্চালন ব্যবস্থাকে ভালো রাখা যায়। এরপর এটিকে ৬০মিনিটে উন্নীত করা গেলে স্বাস্থ্যকর ওজনও বজায় থাকবে।
*তামাক জাতীয় পণ্য বর্জন:
তামাক জাতীয় যেকোনো পণ্যই স্বাস্থ্যের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। এমনকি ধুমপায়ীদের আশেপাশেও যারা থাকেন তাদের জন্যও এটি ক্ষতিকর। হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি কমাতে একজন ব্যক্তিকে খুব দ্রুত ধুমপান ত্যাগের কথা জানিয়েছে হু’র প্রতিবেনটি।
এছাড়া হার্ট অ্যাটাক ও স্ট্রোক এড়াতে নিয়মিত রক্ত চাপ পরীক্ষা করা, রক্তে গ্লুকোজ ও কোলেস্টেরলের মাত্রা জেনে নেওয়ার ওপর গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।

স্বাস্থ্য এর সর্বশেষ খবর

স্বাস্থ্য - এর সব খবর

উপরে