ঢাকা, শনিবার, ২৫ নভেম্বর ২০১৭, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

ঈদের চলচ্চিত্র নিয়ে সন্তুষ্ট প্রেক্ষাগৃহ মালিকরা

২০১৪ আগস্ট ০৭ ২২:১২:০৯
ঈদের চলচ্চিত্র নিয়ে সন্তুষ্ট প্রেক্ষাগৃহ মালিকরা

ঈদুল ফিতর উপলক্ষে প্রেক্ষাগৃহগুলোতে এবার চারটি চলচ্চিত্র মুক্তি দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে দুই একটি চলচ্চিত্রের বিরুদ্ধে নকল ও অশ্লীলতার

অভিযোগ উঠলেও, প্রেক্ষাগৃহ মালিকরা সন্তুষ্ট। কারণ সবগুলো চলচ্চিত্রই হাউজফুল যাচ্ছে। কোন কোন প্রেক্ষাগৃহে তো টিকিট নিয়ে হুড়োহুড়ি এমন কি কালোবাজারি পর্যন্ত হয়েছে। যা দেখে অনেকই বাংলা চলচ্চিত্রের সোনালী যুগের কথাই ভাবছেন।

ঈদের চলচ্চিত্রের ব্যবসায়িক সাফল্যের বিষয়ে চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মিয়া আলাউদ্দিন বাংলামেইলকে জানান, বৃহস্পতিবার পর্যন্ত বদিউল আলম খোকন পরিচালিত ‘হিরো দ্য সুপারস্টার’ ১১৮টি, অনন্ত জলিল পরিচালিত ‘মোস্ট ওয়েলকাম টু’ ৩০টি, সাফিউদ্দিন সাফি পরিচালিত ‘হানিমুন’ ৪২টি এবং মোহাম্মদ হোসেন পরিচালিত ‘আই ডোন্ট কেয়ার’ ৯৩টি প্রেক্ষাগৃহে চলেছে।

তবে প্রেক্ষাগৃহ বুকিংয়ের দিক থেকে পিছিয়ে থাকা চলচ্চিত্রগুলোর জন্যে আশার বাণী শুনিয়ে মিয়া আলাউদ্দিন বলেন, ‘আগের মতো একটি চলচ্চিত্র কয়েক সপ্তাহ ধরে টানা প্রদর্শনের আর সুযোগ নেই। তাই যে চলচ্চিত্রগুলো স্বল্প সংখ্যক প্রেক্ষাগৃহে চলছে, সেগুলোর প্রেক্ষাগৃহের সংখ্যা সামনের সপ্তাহগুলোতে বাড়বে।’

ঈদে মুক্তিপ্রাপ্ত চলচ্চিত্রগুলোর মধ্যে একমাত্র মোহাম্মদ হোসেন পরিচালিত ‘আই ডোন্ট কেয়ার’ ছাড়া সবগুলো চলচ্চিত্রই শেষ মূহুর্তে সেন্সর বোর্ড থেকে ছাড়পত্র পেয়েছিল । তাই প্রেক্ষাগৃহ মালিকরা কাঙ্খিত চলচ্চিত্রটি সময় মতো বুকিং দিতে পারেনি। এ বিষয়ে প্রেক্ষাগৃহ মালিকদের দাবি, ঈদের চলচ্চিত্রগুলো যেন কিছুদিন আগেই সেন্সর দেয়া হয়।

ঈদে মুক্তিপ্রাপ্ত সবগুলো চলচ্চিত্রের নামই ইংরেজী হওয়ার কারণে ক্ষোভ প্রকাশ করেন মিয়া আলাউদ্দিন তিনি বলেন, ‘ঈদের চারটি চলচ্চিত্রের নামই ইংরেজীতে। যা কোন ভাবেই মেনে নেয়া যায় না।’

এ ব্যাপারে সচেতন হওয়া আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘বিএফডিসি, পরিচালক সমিতি এবং সেন্সর বোর্ডকে চলচ্চিত্রের নামের ব্যাপারে আরো সচেতন হতে হবে। কারণ আমাদের চলচ্চিত্র আমাদের সংস্কৃতির বাহক।’

অন্যদিকে কয়েকটি গণমাধ্যমে খবর প্রকাশ হয়েছিল যে, বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহ থেকে শাকিব খান প্রযোজিত ও অভিনীত এবং বদিউল আলম খোকন পরিচালিত ‘হিরো দ্য সুপারস্টার’ চলচ্চিত্রটি নামিয়ে দেয়া হচ্ছে। এ প্রসঙ্গে চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আমার জানা মতে শুধু শাকিবের চলচ্চিত্র নয়, ঈদে মুক্তিপ্রাপ্ত কোন চলচ্চিত্র এথন পর্যন্ত প্রেক্ষাগৃহ থেকে নামিয়ে দেয়া হয়নি।’

এ বিষয়ে জানার জন্যে ময়মনসিংয়ের ভালুকার প্রেক্ষাগৃহ ব্যবসায়ি নজরুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বাংলামেইলকে বলেন, ‘আমার কোন প্রেক্ষাগৃহ থেকে এখন পর্যন্ত ঈদের চলচ্চিত্র নামানো হয়নি। আরো কিছুদিন এই চলচ্চিত্রগুলো চলবে।’

উল্লেখ্য, চলতি সপ্তাহে নতুন কোন চলচ্চিত্র মুক্তি পাচ্ছে না। তাই ঈদে মুক্তিপ্রাপ্ত চারটি চলচ্চিত্রই দেশজুড়ে বিভিন্ন প্রেক্ষাগৃহে প্রদর্শন করা হবে।

উপরে