ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০১৭, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

বিয়ের আগেই ৫টি কথা!

২০১৪ জুলাই ১৪ ১৭:১৫:৩৭
বিয়ের আগেই ৫টি কথা!

আমরা তরুণ প্রজন্মের অনেকেই এখন তাড়াতাড়ি বিয়ে করতে চাই না নানা ঝামেলায়। এসব ঝামেলা কাটানোর জন্যই পাত্রপাত্রীদের কিছু

বিষয়ে আলোচনা করে নেওয়া প্রয়োজন। হবু দম্পতিদের আর্থিক বিষয়ে এসব আলোচনা থেকে দ্বার খুলে যাবে আরো অনেক আলোচনার।

এতে বিয়ের পর আর্থিক বিষয়গুলো সামলানোও অনেক সহজ হবে। এ ক্ষেত্রে যে পাঁচটি বিষয় তাদের উভয়কেই আলোচনা করে নিতে হতে হবে।

আর্থিক দায়িত্ব : সুস্থ ও স্বাভাবিক দাম্পত্যের জন্য আর্থিক বিষয়ে কার কোন দায়িত্ব তা বিয়ের আগেই আলোচনা করে নিতে হবে। প্রতিদিনের আর্থিক চাহিদা কে পূরণ করবেন, তা জেনে নেওয়া প্রয়োজন।

আর্থিক বিষয় ব্যবস্থাপনা কার দায়িত্বে থাকবে আর বিল পরিশোধ কে করবেন, এসব বিষয় পরিষ্কার করে নেওয়া প্রয়োজন। এ ছাড়া আর্থিক লেনদেনের বিভিন্ন কাগজপত্র ও পিন নম্বর কে সংরক্ষণ করবে তা জানা থাকতে হবে।

ঋণ : স্বামী বা স্ত্রী উভয়েরই ঋণের দিকে নজর দিতে হবে। তাঁদের মধ্যে কারো যদি ঋণের পরিমাণ অস্বাভাবিক থাকে তাহলে আগেই তা নিয়ে আলোচনা করে নিতে হবে। এতে লুকোছাপা করা উচিত নয়।

বিয়ে মানে একে অন্যের সঙ্গে অন্যান্য বিষয়ের মতো আর্থিক বিষয়াদিও ভাগাভাগি করে নেওয়া। তাই সময় থাকতে এসব বিষয় আলোচনা ও ঋণ পরিশোধের পরিকল্পনা জেনে নেওয়া উচিত।


আয় অনুসারে পরিকল্পনা : বিয়ের আগেই জুটিদের তাদের বার্ষিক আয় কত টাকা এবং এ টাকা কিভাবে ব্যয় করা হবে, সে সম্পর্কে আলোচনা সেরে নিতে হবে। বার্ষিক আয় আলোচনাটি প্রয়োজন এ জন্য যে, এতে বিয়ের পরে তাদের জীবনযাত্রা কেমন হবে, সে সম্পর্কে উভয়ের স্পষ্ট ধারণা থাকবে।

স্বচ্ছ আর্থিক পরিকল্পনা : আর্থিক বিষয়ে সবারই পরিকল্পনা করা উচিত। আর এ পরিকল্পনায় অন্তর্ভুক্ত করতে হবে দীর্ঘমেয়াদি ও স্বল্পমেয়াদি পরিকল্পনা। পরিকল্পনাতে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে বসবাসের জন্য বাড়ি ভাড়া কিংবা কিনে নেওয়ার পরিকল্পনা ও অবসরকালীন আর্থিক বিষয়াদি।

ক্রেডিট স্কোর : নিয়মিত ঋণ ও বিল পরিশোধ, ব্যাংকের সঙ্গে লেনদেন ইত্যাদির ওপর নির্ভর করে এ ক্রেডিট স্কোর। কারো ক্রেডিট স্কোর কম থাকা মানে তাঁর আর্থিক ব্যবস্থাপনার অভ্যাস খারাপ কিংবা তিনি এ ক্ষেত্রে অদক্ষ। ক্রেডিট স্কোর নিয়ে অতীতে তেমন একটা আলোচনা করা হত না।

কিন্তু বর্তমানে আপনার কতখানি ঋণ নেওয়ার সক্ষমতা আছে, তা অনেকেই গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করেন। ক্রেডিট স্কোর বেশি থাকলে ব্যাংক থেকে ঋণ গ্রহণে সুবিধা হয়। হবু দম্পতিদের উভয়ের এ ক্রেডিট স্কোর নিয়ে আলোচনা করে নেওয়া উচিত। যদি এ স্কোর কম হয় তাহলে তা কিভাবে বাড়ানো যাবে, তাও আলোচনা করে নিতে হবে।

লাইফ স্টাইল এর সর্বশেষ খবর

লাইফ স্টাইল - এর সব খবর

উপরে